অনলাইন ব্যবসায় রাঙামাটির সফল নারী উদ্যোক্তা শিরীন সুলতানা

613

॥ সোহরাওয়ার্দী সাব্বির ॥

করোনা পরিস্থিতিতে পাহাড়ে উৎপাদিত কাজু বাদাম, কফি সহ অন্যান্য সিজনাল ফলের ব্যবসা করে সফল হচ্ছেন রাঙামাটির নারী উদ্যোক্তারা। এরকম সফল একজন নারী উদ্যোক্তা রাঙামাটির শিরীন সুলতানা অরুনা। রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, বান্দরবানসহ বিভিন্ন দূর্গম এলাকা থেকে কাজু বাদাম, কফিসহ অন্যান্য ফল সংগ্রহের পর তা নিজেই প্যাকেটিং করে অনলাইনের মাধ্যমে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। পাহাড়ের এসব ফল সংগ্রহ করে অনলাইনের মাধ্যমে তা গ্রাহকের মাঝে পৌছে দিচ্ছেন। সিজনাল ফলের পাশাপাশি অরুনা কাপড়ের ব্যবসা ও চালিয়ে যাচ্ছেন। তাকে দেখে এলাকার অন্যান্য বেকার নারীরাও করোনা পরিস্থিতিতে এগিয়ে আসছেন অনলাইন ব্যবসায়।

পাহাড়ের নারী উদ্যোক্তা শিরীন সুলতানা অরুনা জানান, পাহাড়ের কাজুবাদাম, কফি সহ অন্যান্য সিজনাল ফলের দেশব্যাপী রয়েছে অনেক সুনাম। করোনা পরিস্থিতিতে ব্যবসায়ীক মন্দা অবস্থার মধ্যে অনলাইনের মাধ্যমে কাজু বাদামসহ অন্যান্য ফলের ব্যবসা সফলতার মুখ দেখছেন। ভবিষ্যতে তার ব্যবসায়ীক পরিধি আরো বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলেন তিনি।

বর্তমান করোন পরিস্থিতিতে নারী উদ্যোক্তাদের অনলাইন ব্যবসাকে স্বাগত জানিয়েছেন রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র। তিনি বলেছেন রাঙামাটির প্রশিক্ষিত বেকার নারীদের কর্মসংস্থানের জন্য রাঙামাটি পৌরসভার পক্ষ থেকে সবসময় সহায়তা করা হচ্ছে ভবিষ্যতে ও তা অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি নারী উদ্যোক্তাদের ব্যবসায়ীক কাজের স্বীকৃতিস্বরুপ পৌরসভার পক্ষ থেকে ট্রেড লাইসেন্স দেয়ার বিষয়ে ও উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানান রাঙামাটি পৌর মেয়র মোঃ আকবর হোসেন চৌধুরী।

করোনা পরিস্থিতিতে অনলাইনে ব্যবসার মাধ্যমে ব্যবসা করে সফল নারী উদ্যোক্তা শিরীন সুলতানা অরুনা এবার অনলাইনের মাধ্যমে স্থানীয় এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় কাজু বাদাম বিক্রি করেছেন প্রায় সাড়ে ১১ লক্ষ টাকার। বর্তমানে তার তত্বাবধানে কাজ করছেন আরো ২০জন নারী-পুরুষ শ্রমিক।
সরকারী সহায়তা পেলে পাহাড়ের কৃষি পণ্য সারাদেশে সরবরাহের পাশাপাশি দেশের বাইরে ও সরবরাহ করা সম্ভব বলে জানান এখানকার নারী কৃষি উদ্যোক্তারা।