অব্যবস্থাপনার কারনেই লোকসান গুনছে কর্ণফুলী পেপার মিল

227

॥ আলমগীর মানিক-কাপ্তাই থেকে ফিরে ॥

গত এক দশকেরও বেশি সময়কাল ধরে অব্যাহতভাবে লোকসানে থাকা কর্ণফুলী পেপার মিল অব্যবস্থাপনার কারনেই লাভের মুখ দেখছে না বলে মন্তব্য করেছেন দশম জাতীয় সংসদের পার্বত্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি।

বুধবার কেপিএম পরিদর্শনে এসে সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে মতবিনিময় শেষে স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধূরী এমপি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জানান, কর্ণফুলী পেপার মিল সরেজমিনে পরিদর্শন করে যা দেখলাম তানিয়ে আমরা খুব অসন্তুষ্ট হয়েছি। আমরা মনে করি এই কেপিএমকে সুষ্ঠভাবে চালু রাখতে হলে সরকারের সুনির্দিষ্ট্য পরিকল্পনা গ্রহণ করা উচিত।

আর এ লক্ষ্যেই রাঙামাটির সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদারের মাধ্যমে অবগত হয়ে কেপিএমকে সচ্চল করতে করণীয় নির্ধারনে আমরা সংসদীয় স্থায়ী কমিটির পক্ষ থেকে এখানে আসা হয়েছে।

পাহাড়ি এলাকার পাহাড়ের মানুষের জীবন-জীবিকা, সভ্যতার উন্নয়নের পাশাপাশি অত্রাঞ্চলের শ্রমিকদের কথা চিন্তা করেই স্থানীয় অর্থনীতির উন্নয়নে অন্যতম উপদায়ক কর্ণফুলী পেপার মিলকে পুর্নগঠন করার লক্ষ্যে সংসদীয় কমিটির পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সুপারিশ করা হবে এবং এই সুপারিশের প্রেক্ষিতেই সরকার আগামীতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলেও জানিয়েছেন পার্বত্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধূরী।

এছাড়াও পাহাড়ের অর্থনীতির অন্যতম চালিকা শক্তি কর্ণফুলী পেপার মিল আধুনিক পদ্ধতিতে নতুন কারখানার মাধ্যমে চালু করা গেলে অত্রাঞ্চলের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠির লোকজনের জন্য ব্যাপকহারে কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে এবং এতে করে অত্রাঞ্চলে চলমান সন্ত্রাসীরা তৎপরতাও অনেকাংশে কমে আসবে।

ঘরে অভাব না থাকলে, পকেট খালি না থাকলে এবং বৈধ উপায়ে আয় করতে পারলে পাহাড়ের প্রার্ন্তিক জনগোষ্ঠির লোকজন সন্ত্রাসের দিকে বা রাহাজানির দিকে ঝুঁকবে না বলেও মন্তব্য করেছেন পার্বত্য মন্ত্রাণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ব্রাক্ষ্মনবাড়িয়া-৩ আসনের এমপি জনাব র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

বুধবার দুপুরে রাঙামাটির কাপ্তাইয়ের চন্দ্রঘোনায় কর্ণফুলী পেপার মিলের পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। এরআগে তিনি কর্ণফুলী পেপার মিলের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে কর্ণফুলী ভবনে কেপিএম-বিসিআইসি ও শিল্পমন্ত্রণায়ের কর্মকর্তাসহ সিবিএ ও শ্রমিক-কর্মচারি পরিষদের নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে কেপিএম এর সার্বিক বিষয়ে সম্যক ধারনা মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে প্রদর্শন করে ব্রিফ করেন কেপিএম এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল কাদের। উক্ত অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেছেন সংসদ ঊষাতন তালুকদারের একান্ত সহকারী এম আর হোসাইন জহির।

বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সভাপতি রআম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী ২৯৯ নং রাঙামাটি আসনের নির্বাচিত সংসদ ঊষাতন তালুকদারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, এই ধরনের একটি অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ন বিষয়টি সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বাংরবার উপস্থাপন করে দৃষ্ঠি আকর্ষন করায় আজ আমরা সরেজমিনে এসে এতো বৃহৎ প্রতিষ্ঠানকে টিকিয়ে রাখার গুরুত্ব অনুধাবন করতে পারলাম।

এই জন্যে সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদারের প্রতি স্থায়ী কমিটির পক্ষ থেকে বিশেষ কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপনও করা হয়।

এসময় রাঙামাটি সংসদ সদস্য উষাতন তালুকদার, রাঙামাটি জেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অংসুপ্রু চৌধুুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন, পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুদত্ত চাকমা, শিল্প মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব জিয়া রহমান খান, পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ন সচিব কাজী আনোয়ার হোসেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান তরুন কান্তি ঘোষ, জাতীয় সংসদের সিনিয়র সহকারি সচিব হুমায়ন কবির, বিসিআইসি’র পরিচালক (উৎপাদন ও গেবেষণা) শাহিন কামাল, সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার আসাদুর রহমান টিপু, কেপিএম এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ড. এম.এ কাদের, কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দিলদার হোসেন, কাপ্তাই উপজেলার ইউএনও, বিসিআইসি শ্রমিক-কর্মচারি ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নুরুল হাদিসহ উদ্বর্তন কর্মকর্তাবৃন্দ এসময় উপস্থিত।

এদিকে, দীর্ঘদিনের প্রচেষ্ঠার পর ধ্বংস হতে যাওয়া কর্ণফুলী পেপার মিলকে বাঁচিয়ে রাখতে গিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাসহ এলাকাবাসীর দুরাবস্থা দেখে জাতীয় সংসদের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার বিষয়টি বারংবার সরকারের উচ্চ মহলসহ সংশ্লিষ্ট্য সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। যার ফলশ্রুতিতে পার্বত্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সর্বোচ্চ পর্যায়ের টিম বুধবার চন্দ্রঘোণায় সরেজমিনে এসে কেপিএম পরিদর্শনে এসেছেন বলে জানিয়ে কেপিএমবাসীর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন দীর্ঘদিন ধরে কেপিএম রক্ষা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া এম আর হোসাইন জহির।