অর্ধদিবস হরতাল পালন : চাঁদাবাজী ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ সমাবেশ

262

p......5

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি- ২১ মার্চ ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : খাগড়াছড়িতে চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে হাজারোও মানুষের একত্ততা প্রকাশ করে অর্ধ দিবস হরতালের সমর্থনে মিছিল মানববন্ধন সমাবেশ পালন করেছে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ প্রতিরোধ কমিটিসহ স্থানীয় বিভিন্ন সংগঠন। সোমবার সকাল ১১টায় মানববন্ধন ও সমাবেশ সভাপতিত্ব করেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক ও মেয়র রফিকুল আলম।

এতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব এস এম সফি, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের নেতা ও পৌর কাউন্সিলর আব্দুল মজিদ, খাগড়াছড়ি চেম্বার অব কর্মাসের সভাপতি সূদর্শন দত্ত, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ও সাংবাদিক আজিমুল হক, খাগড়াছড়ি নাগরিক কমিটির আহবায়ক তাজুল ইসলাম বাদল, খাগড়াছড়ি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক চন্দ্র শেখর প্রমূখ। খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক ও পৌর মেয়র রফিকুল আলম বলেন, বর্তমানে পাহাড়ে পর্যটকদের উপস্থিতি বহুগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে সচল হয়েছে স্থানীয়দের জীবন-মান উন্নতির দিকে এগিয়ে গেছে। এসময় তিনি আরো বলেন পাহাড়ের মানুষ শান্তি চাই। স্থানীয়রা আর সন্ত্রাস চাঁদাবাজি মানবে না। এবার প্রতিরোধের পালা। এসময় তিনি সন্ত্রাসীদের চাঁবাজি বন্ধ,সন্ত্রাসী আটক ও জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে ৪৮ ঘন্টার সময় বেঁধে দেয়। অন্যতাই ৪৮ ঘন্টা পর আবারো কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী জানান তিনি।

নেতৃবৃন্দরা সমাবেশে বলেন, আগামী দিন থেকে খাগড়াছড়িতে আর কোন চাঁদাবাজি হলে তার ফল ভাল হবে না। শহরের শাপলা চত্তরে আঞ্চলিক সংগঠনগুলোর চিহিৃত চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রকাশে শাস্তি দেওয়া হবে। এ সময় সন্ত্রাস চাঁদাবাজের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানান। নেতৃবৃন্দরা অচিরেই পার্বত্য চট্টগ্রামে অনিবন্ধিত আঞ্চলিক সংগঠনের ব্যাপরোয়া চাঁদাবাজি রোধে অভিলম্বে চাঁদাবাজি বন্ধ ও চিহিৃত সন্ত্রাসীদের আটকের দাবী জানান।

এছাড়া আঞ্চলিক সংগঠনের চাঁদাবাজ ও চিহিৃত সন্ত্রাসীদের আটকের দাবীতে খাগড়াছড়ি পৌর এলাকায় সোমবার আধা বেলার হরতাল শান্তিপূর্ণ ভাবে পালিত হয়। রবিবার দুপুরে পৌর মিলনায়তনে ব্যবসায়ীদের নিয়ে এক জরুরী বৈঠক থেকে খাগড়াছড়ি সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ প্রতিরোধ কমিটি এ হরতালের ডাক দেয়। সোমবার সকাল ৬টা থেকে হরতাল চলাকালে বন্ধ ছিল পৌর এলাকায় সব ধরনের হালকা যানবাহন ও দোকানপাঠ। পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কায় পুলিশের পক্ষ থেকে নেওয়া হয় বাড়তি সর্তকতা। সকাল থেকে গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট গুলোতে হরতালের সমর্থনে সাধারণ মানুষসহ হরতাল আহবানকারীদের সমর্থদের পিকেটিং করতে দেখা গেছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নী।

পোস্ট করেনন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান