আষাঢ়ী ঢলেই ভরাডুবিতে নানিয়ারচরের অপরিকল্পিত ডেল্টা প্লান

484

।। নানিয়ারচর প্রতিনিধি ।।

আষাড়ের বর্ষায় হারানো জৌলুশ ফিরে পাচ্ছে এশিয়ার সর্ববৃহৎ কাপ্তাই লেক। ২কুল ছাপিয়ে যাচ্ছে চেঙ্গীর পাড়। এতে খালের ২পাড়ের মাটি মিশে যাচ্ছে কাপ্তাই লেকে। শুক্রবার সকালে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আষাড়-শ্রাবনের পাহাড়ি ঢলে নানিয়ারচর সেতুর তলদেশে খননকৃত খালের ২পাড়ের মাটি মিলে যাচ্ছে কাপ্তাই লেকে। ফলে এলাকাবাসীর আশঙ্কায় বাস্তবে পরিনত হতে চলেছে।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ঘোষিত মুজিব শতবর্ষের ডেল্টা প্লান-২০২১ এর “৬৪টি জেলার অভ্যন্তরস্থ ছোট নদী, খাল ও জলাশয় পুনঃখনন (১ম পর্যায়) এর প্রকল্পটি একটি লাভজনক প্রকল্প হলেও নানিয়ারচরের প্রকৃতি ও পরিবেশ অনুযায়ী এটি একটি অলাভজনক প্রকল্প হিসেবেই পরিনত হয়েছে। খালটি ৩কিলোমিটার পুনঃখননের কথা থাকলেও দেড় কিলোমিটারেই গুটিয়ে যায় এই প্রকল্পের কাজ।

এবিষয়ে নানিয়ারচর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ নুর জামাল হাওলাদার জানান, অপরিকল্পিতভাবে চেঙ্গী খাল পুনঃখনন প্রকল্পের মাধ্যমে সরকারী অর্থের অপচয় হয়েছে। এবিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য প্রিয়তোষ দত্ত জানান, দেশের অন্যান্য অঞ্চলে এবং নানিয়ারচরে এই প্রকল্পের কাজে ভিন্নতা রয়েছে। কেননা কাপ্তাই লেকের পানি বাড়ার সাথে সাথে ডুবে যায় চেঙ্গী খাল। বছরে ৬-৮মাস চেঙ্গী খাল ডুবে থাকে কাপ্তাই লেকে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স হক কন্সট্রাকশনের স্বত্বাধিকারী আলী বাবর জানান, খালে পাহাড়ি ঢল নেমে যাওয়ায়, খাল খননে জলাবদ্ধ পানি মূল খালে নেমে যাওয়াসহ বেশকিছু কারনে আমরা গত মাসেই কাজ বন্ধ করে দেই। যতটুকু কাজ হয়েছে সেই কাজের বিলটাও আমরা আজো পায়নি।