কঠোর অবস্থানে রাঙামাটির প্রশাসন, মোতায়েন থাকবে র‌্যাব ও বিজিবি : এসপি

275

Election-01

আনোয়ার আল হক- ২৯ ডিসেম্বর ২০১৫, দৈনিক রাঙামাটি : রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে কঠোর অবস্থান নিয়েছে প্রশাসন। ‘কোনো অবস্থাতেই কাউকে সামন্যতম ছাড় দেওয়া হবে না’ উল্লেখ করে রাঙামাটি জেলার পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান দৈনিক রাঙামাটিকে বলেন কে বলেছেন। আমরা অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে নির্বাচনকে এতদুর নিয়ে এসেছি। শেষ মূহুর্তে কোনো ধরণের বিশৃঙ্খলা সহ্য করা হবে না। এসপি বলেন, নির্বাচনের দিন কোনো অনিয়ম, কোনো বিশৃঙ্খলা, দখল, জবর দখল ক্ংিবা আইন পরিপন্থী কোনো তৎপরতাকেই সামান্যতম প্রশ্রয় দেওয়া হবে না।

পুলিশ সুপার দৃঢ়তার সাথে বলেন, বিশৃঙ্খলাকারী যে দলেরই হোক বা তার পরিচয় যাই হোক না কেন তাকে ছাড় দেওয়া হবে না। তিনি আরো বলেন আমরা দৃঢ়তার সাথে জনগণের উদ্দেশ্যে জানাতে চাই, পুলিশ এবং প্রশাসন সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ থাকবে। সাধারণ মানুষ যাতে নির্ভয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে সে দিকে লক্ষ রাখবে।

এদিকে র‌্যাব-৭ এর ডিএডি আলমগীর দৈনিক রাঙামাটিকে জানিয়েছেন, রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচনে নিরাপত্তায় বিশেষ দায়িত্ব পালনের জন্য র‌্যাব-৭ এর দুইটি টিম নির্বাচনের দিন রাঙামাটি শহরে মোতায়েন থাকবে।

নির্বাচনের দিন রাঙামাটি পৌর এলাকায় নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে সাজানো হয়েছে, আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীকে। জেলা পুলিশের বিশেষ শাখা এবং কোতয়ালী থানাসূত্রে জানা গেছে, ভোটের দিন রাঙামাটি পৌর এলাকায় মোট ৬০০ পুলিশ মোতায়েন থাকবে। আনসার মোতায়েন থাকবে প্রায় ৪০০। এর মধ্যে প্রতি কেন্দ্রে আনসার সদস্য থাকবে ১১ জন করে।

রাঙামাটি পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে মোট ২৮টি ভোট কেন্দ্র এবং ১৯৩টি পোলিং বুথ রয়েছে। মোট ভোটার সংখ্যা ৫৯,০৪২। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৩২,৭০৬ এবং নারী ভোটার ২৬,৩৩৬ জন।

কেন্দ্র নিরাপত্তায় থাকবে প্রতি কেন্দ্রে ১০জন করে পুলিশ, স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে ৫টি টিম টহলে থাকবে। এর প্রতি টিমে থাকবে ২০ থেকে ২৫জন পুলিশ সদস্য। কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুর রশিদ জানান, এর বাইরে মোবাইল টিম থাকবে ১১টি, প্রতি টিমে থাকবে ১০জন করে পুলিশ সদস্য। শহরে ৭টি পিকেট পার্টি সার্বক্ষণিক পরিস্থিতির দিকে নজর রাখবে। এর অতিরিক্ত হিসেবে দিনভর তিন প্লাটুন আধা সামরিক বাহিনীর (বিজিবি) সদস্য মোতায়েন থাকবে।

জেলা রির্টানিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোস্তফা জামান দৈনিক রাঙামাটিকে বলেন, আমরা দুপুরের মধ্যেই সকল কেন্দ্রের উপকরণসহ কর্তব্যরত কর্মকর্তাদের পাঠিয়ে দিয়েছি। তাদের হাতে ব্যালট পেপার, ব্যালটবাক্স ও কেন্দ্র পরিচালনায় প্রয়োজনীয় সকল উপকরণ পর্যাপ্ত পরিমাণে এবং সুচারুভাবে প্রদান করা হয়েছে। এ ছাড়া ইতোমধ্যে পর্যবেক্ষক, গণমাধ্যম কর্মী ও নির্বাচনী প্রধান এজেন্টদের অনুক’লে পরিচয়পত্র ও গাড়ির ছাড়পত্র প্রদান করা হয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে নির্বাচনের দিন শহরে অনুমোদিত গাড়ি ছাড়া কোনো গাড়ি চলাচল করতে পারবে না। বিষয়টি আইন শৃঙ্খলা বাহিনী কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করবে।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান