কাপ্তাইয়ে খেলাচ্ছলে প্রাণ গেলো এক যুবকের: অভিমানে আরো একজন

79

॥ কাপ্তাই প্রতিনিধি ॥

কাপ্তাইয়ে খেলাচ্ছলে প্রাণ গেলে এক যুবকের। বন্ধুদের আত্মহত্যা কিভাবে করতে হয় দেখাতে গিয়ে সোমবার (২৫ জানুয়ারি) নাইমুর রহমান নয়ন (২২) নামের এক যুবক নিজেই আত্মহত্যা করে ফেলে। ওই দিন একই এলাকায় তার বন্ধু শোয়েব আহমেদ (২৮) পারিবারিক কলহের জেরে আত্ম হত্যা করে। একই দিনে কাপ্তাইয়ে দুই যুবকের অপঘাতে মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে আসে এলাকায়।

এলাকাবাসী জানায় সোমবার পারিবারিক কলহের জেরে অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে কাপ্তাই ইউনিয়নের প্রজেক্ট এলাকায় এলাকায় আত্মহত্যা করে শোয়েব। পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাড়ি চালক খয়েজ আহমদ ছেলে শোয়েব পেশায় শারিরিক শিক্ষক ছিলেন। তিনি পানি উন্নয়ন বোর্ড উচ্চ বিদ্যালয়ে বিনাশ্রমে শিক্ষকতার দায়িত্ব পালন করতেন।

এদিকে শোয়েবের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার পর অনেকেই সমবেদনা জানাতে ছুটে যায় তাদের বাড়িতে। সেখান থেকে ফেরার পর একই এলাকার ফরহাদ হোসেন ছেলে নাইমুর রহমান বিষয়টি নিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে আলাপ করছিল। এক পর্যায়ে বন্ধুদের দেখাতে চেষ্টা করে শোয়েব কিভাবে আত্মহত্যা করেছিল। আত্মহত্যার দৃশ্যে অভিনয় করতে গিয়ে তার গলায় সত্যি সত্যি ফাঁস পড়ে যায়। বন্ধুরা দ্রত তাকে উদ্ধার কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলেও ততক্ষণে সব শেষ হয়ে গেছে; কর্তব্যরত ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
কাপ্তাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাছির উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘রাতে প্রজেক্ট এলাকায় পারিবারিক কলহের জেড়ে শোয়েব গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। অন্যদিকে নাইকুম রহমান নামের এক যুবকও খেলাচ্ছলে গলায় ফাঁস দেয়।’