কাপ্তাইয়ে শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত শিক্ষাঙ্গন

564

|| অর্ণব মল্লিক, কাপ্তাই ||

অবশেষে খুলে দেওয়া হলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে সারা দেশের ন্যায় পার্বত্য জেলা রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার প্রতিটি স্কুল-কলেজে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুরু হয়েছে স্ব-শরীরে একাডেমিক কার্যক্রম। কাপ্তাই উপজেলায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার প্রথমদিনেই পা রেখেই আনন্দ-উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে শিক্ষার্থীরা। সবারই চোখে-মুখে ছিল খুশির ঝিলিক। স্কুল প্রাঙ্গণ আবারও মুখরিত চিরচেনা সেই পরিবেশে।

যেখানে শিক্ষার্থীরা আবার স্ব-শরীরে ক্লাসে অংশ নিচ্ছেন আর শিক্ষকরাও পাঠদান করছেন। এ নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থী সবার চোখে-মুখেই ছিল খুশির ঝিলিক। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্ষুদে শিক্ষার্থীর সঙ্গেই এসেছেন তাদের অভিভাবকরাও। লম্বা বিরতির পর স্কুল শুরুর এই ক্ষণ তাদের কাছে রূপ নিয়েছে আনন্দ আয়োজনে। এদিকে রবিবার সকালে কাপ্তাইয়ের কর্ণফুলী সরকারি কলেজ, কাপ্তাই নৌবাহিনী স্কুল এন্ড কলেজ, কেপিএম স্কুল এন্ড কলেজ এবং কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয় সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে দেখা যায়, প্রবেশমুখে ও প্রতিষ্ঠানের ভেতরে বেসিন, সাবান এবং পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এছাড়াও প্রবেশ মুখে ও আশেপাশে বিভিন্ন ব্যানার ও ফেস্টুনে স্ব-শরীরে ক্লাসের নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সামাজিক দুরত্ব রক্ষার্থে যে সব শ্রেণিকক্ষে একসঙ্গে অনেক শিক্ষার্থী বসে ক্লাস করত সেখানে এখন ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। বাড়ানো হয়েছে শ্রেণিকক্ষের সংখ্যা । এছাড়াও স্বাস্থ্যবিধির কড়াকড়ি ছিল প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানেই। মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার নিশ্চিত করে এবং বডি থার্মাল স্ক্যানার দিয়ে শরীরের তাপমাত্রা মাপার পরই প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছিল শিক্ষার্থীদের।

এছাড়া দীর্ঘদিন পর শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে ফেরায় স্বাগত জানায় বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের শিক্ষকরা। কর্ণফুলী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ এ এইচ এম বেলাল চৌধুরী জানান, কলেজের একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের কোভিড-১৯ এর কারণে দীর্ঘ প্রায় ১৭ মাস পর আজ থেকে শুরু হল স্বাস্থ্যবিধি মেনে কলেজে সশরীরে উপস্থিতিতে শ্রেণিকার্যক্রম। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পদচারণা ও কোলাহলে আবারও উজ্জীবিত হয়েছে সুশোভিত এই প্রাণের বিদ্যাপীঠ।

কাপ্তাই নৌবাহিনী স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ কমান্ডার এম নুরে আলম ছিদ্দিকী জানান, নৌবাহিনী স্কুল এন্ড কলেজ কাপ্তাই এর শিক্ষার্থীরা করোনায় করণীয় বিষয়ে কার্যকরী স্লোগান ও ছবি এঁকে উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দীর্ঘ দেড় বছর পর তাদের শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রমে অংশ নিয়েছে। এদিকে কর্ণফুলী নুরুল হুদা কাদেরী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জয়সীম বড়ুয়া জানান, শিক্ষার্থীদের পদচারনায় আবারো মুখরিত হয়ে উঠেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তবে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং সরকারি নির্দেশনা অনুসরণ করেই শ্রেণী পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

অপরদিকে, কর্ণফুলী সরকারি কলেজের ছাত্র শেখ জাহিদ, কেপিএম স্কুলের ছাত্রী নাফিসা বিনতে নজরুল স্নেহা, কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র সরোয়ার হোসেনসহ অনেক শিক্ষার্থীরা স্কুল কলেজ খোলার প্রথমদিনেই তাদের প্রাণের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এসে আনন্দ প্রকাশ করে বলেন, দীর্ঘদিন পর প্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও তাদের সহপাঠী বন্ধুদের সাথে দেখা হয়েছে, এতেই তারা অনেক আনন্দিত।

দীর্ঘসময় বন্ধের পর আবারো প্রাণের ক্যাম্পাসে সকলের আগমনে মুখরিত হয়ে উঠেছে বলে তারা জানান। উল্লেখ্য, দেশে প্রথম করোনা শনাক্ত হওয়ায় গত বছরের ১৭ মার্চ বন্ধ করা হয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এরপর দীর্ঘ ৫৪৩ দিন বন্ধ থাকার পর অবশেষে রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল কলেজ খুলে দিয়েছে সরকার।