কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে হঠাৎ বেড়েছে রোগীর চাপ

337

॥ অর্ণব মল্লিক, কাপ্তাই ॥

কয়েকদিন আগেও হাসপাতালে রোগীর চাপ কম ছিল। কিন্তু দুয়েক দিন এর ব্যবধানে কাপ্তাই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বেড়ে গেছে রোগীর চাপ। আবহাওয়াজনিত কারণে মানুষরা বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়। এছাড়া নতুন ভর্তি হওয়া রোগীদের মধ্যে শিশুদের সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে নিউমোনিয়া, ডায়রিয়া, সর্দি-কাশিসহ নানা অসুখের প্রাদুর্ভাব বেড়ে গেছে কাপ্তাইয়ে। বর্তমানে রোগীর চাপ অতিরিক্ত বেড়ে যাওয়ার ফলে কাপ্তাই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কিছু কিছু রোগীদের ফ্লোরে ভ্রাম্যমান শয্যার মাধ্যমে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে বর্তমানে করোনা রোগীদের চাপ কমলেও আবহাওয়া জনিত কারণে রোগীদের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় হিমশিম খেতে হচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে। বৃহস্পতিবার সকালে কাপ্তাই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে কথা নিউমোনিয়া জনিত কারণে ভর্তি হওয়া শিশু জুবায়ের এর মা জাহনারা বেগম এর সাথে তিনি বলেন- হঠাৎ শিশু জুবায়ের গত দুই পূর্বে জ্বর সর্দি কাশি বেড়ে যাওয়ায় তাকে বড়ইছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আসে। তার নিউমোনিয়ার উপসর্গ থাকলেও হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে অনেকটা সুস্থ হয়েছে।

এদিকে কাপ্তাইয়ের বিভিন্ন ইউনিয়নের বেশ কয়েকজন বাসিন্দাকে জ্বর সর্দি ডায়রিয়া সহ বিভিন্ন আবহাওয়া জনিত কারণে হাসপাতালে ভর্তি হতে দেখা গেছে। কাপ্তাই স্বাস্থ্য বিভাগের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ও করোনার ফোকাল পার্সন ডাঃ ওমর ফারুক রনি জানান, কাপ্তাইয়ে করোনার প্রকোপ কিছুটা কমলেও বিভিন্ন মৌসুমী রোগে আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন বয়সের ব্যাক্তিরা হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। তবে শিশুদের শ্বাসকষ্ট ও নিউমোনিয়া জনিত কারণে বেশি ভর্তি হচ্ছে বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, গত কয়েকদিনের ব্যবধানে হাসাপাতালে অভ্যন্তরীণ বিভাগের শয্যাগুলোতে রোগীদের চাপ অতিরিক্ত বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে ফ্লোরে ভ্রাম্যমান শয্যা করে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিতে হচ্ছে।

এছাড়া তিনি বলেন, সম্প্রতি কাপ্তাই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নতুন ভবন কিছু আসবাবপত্র সংকট থাকার ফলে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। তবে এই বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা হয়েছে বলে তিনি জানান। অতিদ্রুত হাসপাতালের শয্যা সংখ্যা বাড়ানো গেলে এই সমস্যা আর থাকবেনা। এছাড়া তিনি কাপ্তাইবাসীকে আবারো যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাফেরা করার পরামর্শ জানান।