কুতুকছড়ির বিকল্প ব্রীজ দিয়ে রাঙামাটি খাগড়াছড়ি যান চলাচল শুরু

95

॥ মঈন উদ্দীন বাপ্পী ॥

বিকল্প সড়ক নির্মাণ হওয়ার ফলে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে যান চলাচল শুরু হয়েছে। ১২জুন সকালে রাঙামাটি সদরের কুতুকছড়ি এলাকায় অতিরিক্ত পাথর বোঝাই ট্রাকের ভারে বেইলী ব্রিজ ভেঙ্গে যাওয়ায় রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে দীর্ঘ ১৩দিন যান চলাচল ব্যাহত ছিলো। সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং ২০ ইসিবি ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রকশন ব্রিগেড এর যৌথ প্রচেষ্টায় অবশেষে একটি বিকল্প সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে বিকল্প সড়কটি খুলে দেওয়ায় মানুষ এখন কিছুটা স্বস্তির নি:শ^াস ফেলছে।
তবে সড়ক বিভাগ থেকে বলা হয়- বিকল্প সড়ক নিমার্ণ করা হলেও সড়কটি দিয়ে শুধু হালকাযান চলাচল করতে পারবে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ রাঙামাটি জেলার নির্বাহী প্রকৌশলী মো: শাহে আরেফীন বলেন, কুতুকছড়ি সড়কটি সচল করতে সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং সেনাবাহিনীর ২০ ইসিবি গত ১৫ জানুয়ারী থেকে যান চলাচলের জন্য একটি বিকল্প সড়ক নির্মাণের কাজ শুরু করে। তবে স্থায়ী ভাবে সড়ক নির্মাণ করতে ওই এলাকায় বেইলী ব্রিজের বদৌলতে পিসি (আরসিসি) ৮১ মিটার লম্বা গার্ডার ব্রীজ নির্মাণ করা হবে খুব শিগগরই। এইজন্য একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে বলে প্রকৌশলী যোগ করেন।

তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৩৪ ব্রিগেডের আওতাধীন ২০ ইঞ্জিনিয়ার কনসট্্রাকশন ব্যাটেলিয়ানকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আমরা আশা করছি সরকারী প্রক্রিয়া শেষ করে একটি পাকা সেতুর কাজ দ্রুত সময়ের মধ্যে শুরু করা সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, কুতুকছড়ি সড়কটিসহ তিন পাবর্ত্য জেলার ৯৭ টি বেইলী সেতু এবং চট্টগ্রাম-কক্সবাজারের ২০ টি বেইলী সেতুর স্থলে আরসিসি গার্ডার ব্রীজ নির্মানে এক হাজার ৩০৮ কোটি টাকার একটি প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে। প্রকল্পটি একনেকে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। যদি পাস হয় তাহরে কাজ শুরু করা হবে।
তিনি আরও বলেন, বর্তমানে নির্মিত বিকল্প সড়কটি দিয়ে বাসসহ হালকাযান চলতে পারবে। তবে পাঁচ টনের অধিক কোন পরিবহন চলতে পারবে না। গত ১২জুন সকালে রাঙামাটি সদরের কুতুকছড়ি এলাকায় অতিরিক্ত একটি পাথর বোঝাই ট্রাকের ভারে বেইলী ব্রিজ ভেঙ্গে গেলে সেইদিন ট্রাক চালকসহ তিনজন মারা যান।