খাগড়াছড়িতে নতুন ধান কর্তন উদ্বোধন

278

news-photo

মিল্টন চাকমা- ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি: পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উদ্যেগে আউশ প্রনোদনা ২০১৬ এর আওতায় মিউটেন্ট নামের ধান কর্তন উদ্বোধন করা হয়েছে। ৮ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় চৌংড়াছড়ি ব্লকে একর্যক্রম উদ্বোধন করেছেন, মহালছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: ইলিয়াছ মিয়া।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি জেলা কৃষি অধিদপ্তরের উপপরিচালক তরুণ ভট্টাচার্য্য, মহালছড়ি উপজেলা উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো: কাজী মনির উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ক্যাচিংমিং চৌধুরী, মহালছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রতন কুমার শীল এবং সংশ্লিষ্ট ব্লকের উপসহকারী কর্মকর্তা তৃপ্তিকর চাকমা ও উপজেলার অন্যান্য ব্লকের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তাগণ।

বাংলাদেশ সরকার এ দেশের কৃষকদের উচ্চ ফলনশীল ফসল উৎপাদনের জন্য পরীক্ষমূলক ভাবে আউশ মৌসুমের জন্য নেরিকা মিউটেন্ট নামের এ ধান শষ্যটি মহালছড়ি উপজেলার ১শ জন কৃষক চাষাবাদ করেন। মহালছড়ির চৌংড়াছড়ির গ্রামের কৃষক হলাঅংসু মারমা এ ধান চাষ করে প্রতি হেক্টরে ৪.৭ মে:টন উৎপাদন হয়েছে বলে দাবী করেন।

স্থানীয় কয়েকজন কৃষক মনে করেন এ শষ্যটি চাষাবাদ করলে কৃষকেরা অবশ্যই লাভবান হবে। মহালছড়ি উপজেলা উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা কাজী মনির উদ্দিন বলেন, এ ধানের প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, নেরিকা মিউটেন্ট নামের এ ধানটি খরা সহনশীল, কান্ড শক্তের কারনে সহজে মাটিতে বিছিয়ে পড়েনা ও ৯০ থেকে ১ শ দিনের মধ্যে অর্থাৎ অতি কম সময়ে ফসল উৎপাদন করা যায়। তিনি আরো বলেন, যদিও এ ধানটি আউশ মৌসুমের জন্য হলেও বছরে সকল মৌসুমে চাষাবাদ করা যেতে পারে। সকল কৃষককে এ ধানটির বিষয়ে সচেতন করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান তিনি।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরো প্রধান। সূত্র, অন্য মিডিয়া