খাগড়াছড়িতে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আ’লীগের দু’গ্রুপের আলাদা র‌্যালী ও আলোচনাসভা

714

আল-মামুন, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি- ১৩ জানুয়ারী ২০১৭, দৈনিক রাঙামাটি: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও আলোচনাসভা করেছে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সমর্থিক বিভক্ত দু’গ্রুপ।

১০ জানুয়ারী মঙ্গলবার সকালে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন ও পরে দলীয় কার্যালয় থেকে সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল আলমের নেতৃত্বে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে টাউন হলে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি ভার্স্কয্যে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান। পরে দলীয় কার্যালয়ে এসে আলোচনাসভা করা হয়।

খাগড়াছড়ি জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো: রইস উদ্দিনের সভাপতিত্বে এ সভায় উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাহেদুল আলম, যুগ্ম সাধরণ সম্পাদক এসএম সফি, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক দিদারুল আলম দিদার, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জহির উদ্দন ফিরোজ প্রমূখ।

বক্তরা বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। স্বদেশ প্রেমের মাধ্যমে এ দেশেকে নিয়ে জাতির জনক যে স্বপ্ন দেখে ছিলেন আজ তা তারই সূযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা বাস্তবায়ন করে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।

অপর দিকে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার সমর্থকরা নেতাকর্মীদের নিয়ে অস্থায়ী কার্যালয় থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী নিয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে টাউন হলে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি ভার্স্কয্যে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে আলোচনাসভা করে।

এতে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, সহ-সভাপতি কল্যান মিত্র বড়ুয়া, বীর কিশোর চাকমা অটল, জেলা পরিষদ সদস্য মংক্যচিং চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের নেতা ও পাজেপ সদস্য মংসেইপ্রু চৌধুরী অপু, জুয়েল চাকমা, শতরূপা চাকমা, আ: জব্বার, যুবলীগের সভাপতি যতন কুমার ত্রিপুরা, সাধারণ সম্পাদক কেএম ইসমাইল হোসেনসহ দলের সিনিয়র নেতাকর্মীরা এতে অংশ নেয়।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত পৌর নির্বাচনে দলীয় মেয়র প্রার্থী দেয়াকে কেন্দ্র করে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এবং সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল আলমের অনুসারীদের মধ্যে দ্বিধা বিভক্তির সৃষ্টি হয় । আজ অবদি সে দন্ধ বিরাজমান রয়েছে।

 পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরো প্রধান।