খাগড়াছড়িতে বিজিবি-পুলিশের সাথে হিল উইমেন্সের সংঘর্ষ: আহত ২০, আটক ২৫

706

আল মামুন- (খগড়াছড়ি), ৭ জুন ২০১৭, দৈনিক রাঙামাটি:  খাগড়াছড়িতে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের উদ্যোগে আজ বুধবার সকালে সদরের স্বনির্ভর বাজার এলাকায় কল্পনা চাকমার অপহরণকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের প্রশাসনের অনুমতি না থাকায় বাঁধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ৬ পুলিশ সদস্য, ৩জন বিজিবি ও বিক্ষোভকারী ইউপিডিএফ সমর্থিত হিল উইমেন্স ফেডারেশন ১১ সদস্যসহ ২০জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় ১৯ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন। এ দিকে হিল উইমেন্স ফেডারেশন তাদের সংগঠনের কর্মী-সমর্থক প্রায় ২৫ জনকে আটক করা হয়েছে বলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান। হামলায় আহত ৯ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর  সদস্যের মধ্যে আহতরা হচ্ছে-একজন হাবিলদারসহ তিনজন বিজিবি সদস্য ও একজন ডিএসবি সদস্যসহ ৬ পুলিশ সদস্য রয়েছে। আহত বিজিবি সদস্যরা হলেন, হাবিলদার হাবিবুর রহমান(৫০), সৈনিক কামরুজ্জামান(২৬), সৈনিক রুবেল(২৪)।


বুধবার সকাল ১০টা দিকে শহরের স্বনির্ভর এলাকা থেকে ইউপিডিএফ সমর্থিত হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে।  এসময় পূর্ব অনুমতি না থাকার অভিযোগে পুলিশ মিছিলে বাধা দেয়। প্রশাসন ও সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করতে না পেরে বিজিবি সহায়তা কামনা করলে বিজিবি পুলিশের সাথে যোগ দেয়। এসময় বিক্ষোভকারীরা বিজিবির উপরও হামলা অব্যাহত রাখে। ৩২ বিজিবি অধিনায়ক হাসানুজ্জামান চৌধুরী জানান, ইউপিডিএফ ও হিলউইমেন্স ফেডারেশন কর্মিদেও এলোপাথারী ইটপাটকেল ও গুলতির আঘাতে ৩জন বিজিবি ও ৬জন পুলিশ সদস্য আহত হয় । পুলিশ বিজিবির সহায়তায় ঘটনাস্থল থেকে ২১ জনকে আটক করে। পরে দুইজনকে ছেড়ে দেয়।

খাগড়াছড়ি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমএম সালা উদ্দিন বলেন, প্রাথমিক অবস্থায় আটক করা মধ্য থেখে যাছাই-বাছাই করে ৮জনকে আটক রাখা হয়।

এ ঘটনার পর পর খাগড়াছড়ি জেলার বিভিন্ন উপজেলায় গাড়ী ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। মানিকছড়ির পিচলাতলায় কাঠালবাহী পিকআপে অগ্নি সংযোগসহ ৭টি গাড়ী ভাংচুর এর খবর পাওয়া গেছে। এছাড়াও রামগড়ে গাছ কেটে সড়ক অবরোধের ঘটনাও ঘটেছে। পিচলাতলায় দুর্বৃত্তরা গাড়ীতে আগুন দেয়। পরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে গুইমারা উপজেলা চেয়ারম্যান উশ্যেপ্রু মারমা। এ ঘটনার জন্য তিনি দু:খ প্রকাশ করে এ ধরনের ঘটনার নিন্দা জানান।

এদিকে গণ ধরপাকড়ের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে গণধরাকপড়ের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে হিল উইমেন্স ফেডারেশন, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম। হিল উইমেন্স ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক নীতিশোভা চাকমা প্রেরিত এক বার্তায় অভিযোগ করা হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, আয়োজিত শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে বিনা উস্কানীতে পুলিশ ও বিজিবি’র হামলা চালায়। তারা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরো প্রধান