গণটিকা কার্যক্রমে স্বাস্থ্যসেবীদের পাশে যুব রেড ক্রিসেন্ট ও ছাত্রলীগ

293

।।নানিয়ারচর প্রতিনিধি।।

করোনার বিস্তার ঠেকাতে সারাদেশে গণটিকার অংশ হিসেবে ইউনিয়ন পর্যায়ে টিকাদান কর্মসূচি হাতে নিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। দিনব্যাপী এই টিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়নে স্বাস্থ্যসেবীদের সাথে স্বেচ্ছায় শ্রম দিয়ে পাশে থেকেছে নানিয়ারচর যুব রেড ক্রিসেন্ট ও উপজেলা ছাত্রলীগ টিম। শনিবার দুপুরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে ২হাজার ৪শ জন ব্যক্তিতে করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে।

৪টি কেন্দ্রের ১২টি বুথে ১জন করে মেডিকেল এসিসটেন্ট ও ১জন নার্স টিকা প্রদান করেছে। টিকা নিতে আসা সেবাগ্রহীতাদের মাঝে স্বাস্থ্যসেবীদের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনও সেবা প্রদান করতে দেখা যায়। এদিকে গণটিকা কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসন (সার্বিক) মোঃ মামুন, নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিউলি রহমান তিন্নী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আসমা আক্তার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. নূয়েন খীসা, থানার ওসি মোঃ সাব্বির রহমান প্রমূখ। স্থানীয়রা জানায়, স্বাস্থ্যসেবীদের পাশাপাশি রেড ক্রিসেন্ট ও ছাত্রলীগকর্মীদের সহযোগিতায় তারা স্বতঃস্ফূর্তভাবে টিকা নিতে পেরেছে।

228398118_1160663161110613_1691923887498435098_n

টিকার নিবন্ধন, সারিবদ্ধভাবে দাঁড়ানো ও সেবা নিতে আসা বয়ষ্ক নারী পুরুষকে টিকা নিতে সহায়তা করেছে এই ২টি সংগঠনের সদস্যরা। টিকাদান কর্মসূচির বিষয়ে নানিয়ারচর স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ক কর্মকর্তা ডা. নূয়েন খীসা জানান, নানিয়ারচর উপজেলার ১নং সাবেক্ষং ইউনিয়নে মরাচেঙ্গী কমিউনিটি ক্লিনিক, ২নং নানিয়ারচর ইউনিয়নের সাপমারা জুনিয়র স্কুল, ৩নং ইউনিয়নে বগাছড়ি পুর্নবাসন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৪নং ঘিলাছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ে করোনা টিকা প্রদান করা হয়েছে।

এসময় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো টিকাদানে সহায়তা করেছে যা অত্যন্ত প্রশংসানীয়। এবিষয়ে নানিয়ারচর উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুবেল মৃধা জানায়, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মহামারী করোনায় সারাদেশে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। সারাদেশে করোনার গণটিকা কার্যক্রমে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশে ও রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের দিক-নির্দেশনায় নানিয়ারচরে ৩টা ইউনিয়নে স্বেচ্ছাসেবী টিম গঠন করা হয়েছে।

প্রতিটি টিমে ১১জন করে মোট ৩৩জন স্বেচ্ছাসেবী সারাদিন স্বাস্থ্যকর্মীদের সাথে সেবা দিয়েছে। উপজেলার ৪নং টিকা কেন্দ্রর প্রধান সমন্বয়ক ও উপজেলা ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক তুফান চাকমা জানান, ঘিলাছড়ি টিকা কেন্দ্রে নিবন্ধন সংক্রান্ত জটিলতা থাকায় টিকা কার্যক্রমে দেরি হয়েছে। ছাত্রলীগের স্বেচ্ছাসেবী সদস্যরা বিকাল অব্দি স্বাস্থ্যসেবীদের সাথে করোনা টিকা প্রদানে সহযোগিতা করে গেছে। এবিষয়ে যুব রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির টিম লিডার মোঃ রায়হান জানান, নানিয়ারচরের ঘিলাছড়ি ও বগাছড়ি কেন্দ্রে আমাদের ৯জন সদস্য দিনব্যাপী এই কার্যক্রমে সেবা দিয়ে গেছে। স্বল্প সময়ে ও দুর্গম এলাকা হওয়ায় সাবেক্ষং ও নানিয়ারচর ইউনিয়নের সেবা কেন্দ্রে সদস্য পাঠারে পারেনি তারা। তবে পরবর্তিতে প্রতিটা কেন্দ্রে যুব রেড ক্রিসেন্ট স্বাস্থ্যসেবীদের পাশে থাকবে বলেও জানান তিনি।