গ্রেফতার করে, জেলে নিয়ে জঙ্গী সমস্যার সমাধান নয়

469

স্টাফ রিপোর্ট- ৫ আগস্ট২০১৭, দৈনিক রাঙামাটি (প্রেস বিজ্ঞপ্তি): আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর থাকায় ঈদ, দুর্গাপুজা, জন্মাষ্টমিকে সামনে রেখে বড় ধরনের কোনো জঙ্গী হামলার আশংকা নেই। জঙ্গীদের অপারেশন ক্যাপাসিটি ভেঙে দেওয়া হয়েছে। জঙ্গীবাদ মোকাবিলায় শুধু গ্রেফতার, জেলহাজত বা হত্যাই সমাধান নয়। জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে বিপথগামীদের ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে কর্মমুখী শিক্ষা, বিতর্ক চর্চাসহ সৃজনশীল কাজের সাথে সম্পৃক্ত করতে হবে। আজ ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত জঙ্গীবাদ মোকাবিলাই করণীয় শীর্ষক এক ছায়াসংসদে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান  মো. মনিরুল ইসলাম এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র  চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

মনিরুল ইসলাম আরো বলেন, বর্তমান বৈশি^ক প্রেক্ষাপটে জঙ্গীবাদের একক কোনো সঙ্গা নেই। এটি অনেকগুলো কারণের সমষ্টি। জঙ্গীবাদ দমনে সরকার জিরো টলারেন্স ভূমিকায় রয়েছে। সেই নিরিখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জিরো টলারেন্স বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে। ধর্মের অপব্যাখ্যা যাতে কেউ না দিতে পারে সে বিষয়ে ইসলামী স্কলারদের আরও কাজে লাগানোর উপর গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, জঙ্গীবাদ মোকাবিলায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীকে অত্যন্ত মানবিকতার সাথে কাজ করতে হবে, যাতে সাধারণ মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ না হয়। জঙ্গীবাদ দমনে যে সামাজিক সচেতনতার বৃদ্ধির লক্ষ্যে সকল রাজনৈতিক দলসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষদের সম্পৃক্ত করতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশ পাকিস্তান, আফগানিস্তান বা সিরিয়ার বোর্ডার নয়, তাহলে জঙ্গীবাদ কেন তৈরি হচ্ছে সে বিষয়ে আমাদের অনুসন্ধান করতে হবে।

প্রতিযোগিতায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়কে হারিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় জয়ী হয়। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করা হয়। প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন- প্রাক্তন বিতার্কিক- লেখক অধ্যাপক মোহাম্মদ রাইস, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও লেখক তাসমিয়াহ আফরিন মৌ, প্রাক্তন বিতার্কিক ড. এসএম মোরশেদ, ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক ও গবেষক জাহিদ রহমান।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরো প্রধান।