চন্দ্রঘোনা ইউপি’র স্থগিত নির্বাচনে নৌকার জয়

418

OLYMPUS DIGITAL CAMERA
॥ মঈন উদ্দীন বাপ্পী ॥

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার ১নং চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার জয় হয়েছে।

আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী (নেীকা ) প্রতীক নিয়ে ৬৩৪৯ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত জাকির হোসেন (ধানের শীষ ) প্রতীক নিয়ে পান ৪৭৩ ভোট।

এছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মুহাম্মদ হারুনুর রশিদ ( হাতপাখা ) প্রতীক নিয়ে পান ৮৩ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী ইব্রাহিম হাবিব (আনারস) প্রতীক নিয়ে ১৭৩ ভোট পান বলে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নাজিম উদ্দীন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

শনিবার সকাল থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এ ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।দুপুরে কারচুপি ও জাল ভোটের অভিযোগে এনে আগে নির্বাচন বর্জন করেছেন বিএনপি সমর্থিত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী জাকির হোসেন।

এ নির্বাচনে শান্তিপূর্ণ পরিবেশের মধ্যে দিয়ে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হলেও সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, অধিকাংশ কেন্দ্রে সরকার সমর্থিত প্রার্থী ছাড়া আর কোন চেয়ারম্যান প্রার্থীর নির্বাচনী এজেন্টের উপস্থিতি ছিলো না। নির্বাচনী এলাকায় আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে পুলিশ ও আনসার এর পাশাপাশি বিজিবি মোতায়েন ছিলো।

বিএনপির সমর্থিত প্রার্থী জাকির হোসেন জানান, শান্তি এবং সুশৃংঙ্খল ভাবে ভোট হলে আমি জিততাম। তিনি বলেন, সরকার দলীয়দের প্রতিনিয়ত চাপ, জালভোট, ক্ষমতার অপব্যবহারের কারণে আমি নির্বাচন থেকে সরে আসতে বাধ্য হয়।
বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর এমন অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামীলীগ সমর্থিত বিজয়ী প্রার্থী আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী জানান,নির্বাচন সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে হয়েছে। তিনি বলেন, বিএনপি’র সমর্থিত প্রার্থী হেরে গিয়ে এসব কথা বলছে। তাদের ছিলো না কোন জনসমর্থন। জনগণ ভোটের মাধ্যমে আমাকে নির্বাচিত করে যে দায়িত্ব দিয়েছে আমি তা যথাযথ ভাবে পালন করবো।

উল্লেখ্য,উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের মধ্যে চারটির ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও ১নং চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন সীমানা জটিলতার কারণে এ ইউনিয়নে নির্বাচন স্থগিত করা হয়। পরে রিট করায় আদালত এটি খারিজ করলে নির্বাচন কমিশন চলতি বছরের ১২নভেম্বর পুন:রায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবার ঘোষণা প্রদান করে।