জাতির জন্য ভালো মা তৈরি করতে সকল নারীকে শিক্ষার আওতায় আনতে হবে

391

॥ মঈন উদ্দীন বাপ্পী ॥

জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি বলেছেন, জাতি গঠনের জন্য ভালো মা এবং যোগ্য মা অত্যন্ত প্রয়োজন। তিনি বলেন, এই শ্বাশ্বত বাণীটি আমরা সবাই জানি। তবে শুধু জানলেই হবে না, এ জন্য কাজ করতে হবে। ভালো মা তৈরির জন্য নারীদের শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে।

শিক্ষার্থীদের নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে, ভালো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়তে হবে এবং শিক্ষা ব্যবস্থাকে আধুনিক করতে হবে। শেখ হাসিনার সরকার সে লক্ষ্যেই বিগত আট বছর নিরলসভাবে কাজ করে গেছে।

বিপুল সংখ্যক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি করার পাশাপাশি ¯œাতক শ্রেণি পর্যন্ত নারী শিক্ষা অবৈতনিক করে সরকার শিক্ষাক্ষেত্রে বিপ্লব সাধন করেছে। রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় একটি ভালো মা তৈরির কারখানা বলে উল্লেখ করে ডেপুটি স্পীকার বলেন, এই প্রতিষ্ঠান ৫০ বছরের ইতিহাসে যে গৌরবময় অধ্যায় পার করে এসেছে তা আমাদের জন্য যুপতভাবে গর্বের এবং আনন্দের।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি হয়েছিল বলেই আজ পাহাড়ে শান্তি বিরাজ করছে এবং এ এলাকার মানুষ উন্নয়নের মহাসড়কে পদার্পণ করতে পেরেছে। শুক্রবার রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্য ডেপুটি স্পীকার এসব কথা বলেন।

ডেপুটি স্পিকার বলেন, ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে পাহাড়ে শান্তির জন্য একটি কমিটি গঠন করে। আর এ কমিটির মাধ্যমে পাহাড়ে পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়িত হয়েছে।

এ চুক্তি একটি চলমান প্রক্রিয়া বলে মন্তব্য করেন তিনি। তিনি বলেন পার্বত্য চুক্তির কারণে এ স্কুলে অনুষ্ঠান করা যাচ্ছে। আর এ অবদান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিক প্রচেষ্টায়।

রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নানের সভাপতিত্বে এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ২৯৯ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার, জাতীয় সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য দীপংকর তালুকদার, রাঙামাটি জোন কমান্ডার লে. কর্ণেল রিদওয়ানুল ইসলাম, পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সরিৎ কুমার চাকমা।

স্পিকার বলেন, শেখ হাসিনার কারণে বর্তমানে মেয়েদের পাশাপাশি ছেলেরা উপবৃত্তি পাচ্ছে। স্মাতক পর্যন্ত এ উপবৃত্তি চালু করেছে সরকার। তিনি বলেন, শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড। এজন্য শিক্ষাকে গুরুত্ব দিতে হবে। এ উপলব্দি থেকে সরকার ২৬হাজার স্কুলকে সরকারিকরণ করেছে। শিক্ষার্থীদের হাতে কোটি কোটি বই তুলে দেওয়া হয়েছে। এটাই শেখ হাসিনা সরকারের সাফল্য বলে তিনি জানান।

স্পিকার শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য বলেন, তোমরা ১৮ বছর হওয়ার আগে বিয়ে করো না। সরকারের এ আইনকে স্বীকার করতে হবে।

অভিভাবকদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে স্পিকার আরও বলেন, ইন্টারমিডিয়েট পাশের আগে ছাত্রীদের হাতে মোবাইল তুলে দিবেন না। বিদ্যালয়ের ভবন সংস্কার, অডিটরিয়াম ও ছাত্রী হোস্টেঠ সংকটের দাবিতে তিনি বলেন, এ অঞ্চলে দু’জন সংসদ সদস্য রয়েছেন।

বিদ্যালয়ের অডিটরিয়াম ও ছাত্রী হোস্টেলের জন্য লেকের পার ভরাটের অর্থ  এ অঞ্চলের দু’জন সংসদ সদস্য টিআর এবং কাবিখা প্রকল্প থেকে বরাদ্ধ দিবে। এছাড়া উন্নয়ন বোর্ড থেকে প্রকল্প নেওয়ার জন্য বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে পরামর্শ প্রদান করেন। বক্তব্য পরবর্তী বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়।