জেলা পরিষদের নামে জাল চিঠি দেখিয়ে হয়রানির অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

183

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

স্বাক্ষর জালিয়াতির মাধ্যমে ভুয়া নথি তৈরি করে হয়রানি, মিথ্যা মামলা ও হুমকি ধামকি দেয়া হচ্ছে বলে সুবিচার পাওয়ার দাবীতে বাঘাইছড়ির আমতলী ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান রাসেল চৌধুরীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী এক ইউনিয়ন আ’লীগ নেতা।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকালে রাঙামাটি প্রেসক্লাবে এ সাংবাদিক সম্মেলন করেন আমতলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মো. ইব্রাহিম সওদাগর ও তার জামাতা মো. ফারুক।

লিখিত বক্তব্য ইব্রাহীম সওদাগর বলেন, সম্প্রতি আমার মেয়ের জামাই মোঃ ওমর ফারুকের ক্রয়কৃত ভোগ দখলে থাকা দোকানের প্লটে সংস্কার কাজ করতে গেলে রাসেল চৌধুরী দুই লক্ষ টাকা চাঁদার দাবিতে কাজ বন্ধ করে দেয় এবং একপর্যায়ে আমার মেয়ের জামাইকে মারধর করে। মেয়ের জামাইকে বাঁচাতে গেলে তারা আমাকেও মারধর করে। উপস্থিত লোকজন আমাদের রক্ষাকরে আমার বাড়িতে পাঠিয়ে দিলে রাসেল চৌধুরী ও তার পোষা বাহিনী বাড়িতে ঢুকে মহিলাদের পর্যন্ত লাঞ্চিত করে এবং মামলার হুমকি দেয়।

‘হুমকি অনুযায়ী সে গত ২৬ জুলাই অন্য এলাকার একটি ঘটনাকে পুঁজি করে আমি এবং আমার মেয়ের জামাইকে আসামি মামলা করে। এই প্রেক্ষিতে আমিও ২৮জুলাই আদালতের স্মরণাপন্ন হই। বিজ্ঞ আদালত অভিযোগের ভিত্তিতে আসামিদের গ্রেফতারের আদেশ দেন। কিন্তু মামলার পরবর্তী তারিখে রাসেল চৌধুরী জেলা পরিষদের নামে একটি ভূয়া চিঠি দাখিল করে দোকানের প্লটের উপর ১৪৪ ধারা জারির আদেশ নেন। আমি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে দেখা করে চিঠির বিষয়ে জানতে পারি টিঠিটি ভূয়া এবং চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর সঠিক নয়’। এভাবে মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে সে নানাভাবে আমাদের হয়রানী করছে এবং প্রতিনিয়ত হুমকি ধামকি প্রদান করে যাচ্ছে।

সাংবাদিক সম্মেলনে ইতোপূর্বে শিক্ষাসনদ জাল করাসহ সাবেক চেয়ারম্যান রাসেলে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির ফিরিস্তি তুলে ধরা হয়। পাশাপাশি সকলের কাছে সুবিচার প্রাপ্তিতে সহযোগীতা ও তাদের জীবনের নিরাপত্তা পাওয়ার দাবি জানানো হয়।