ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ যৌন হয়রানী ও ধর্ষণ প্রতিরোধে সচেতনতার লক্ষ্যে আলোচনা ও পোস্টার প্রদর্শনী

112

 

স্টাফরিপোর্ট- ২৭ নভেম্বর ২০১৮, দৈনিক রাঙামাটি (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি):

‘ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়ন মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ’ এই আহ্বান জানিয়ে এ বছর বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ (২৫ নভেম্বরÑ১০ ডিসেম্বর) ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস, ২০১৮ পালন করছে। এ উপলক্ষে পক্ষকাল ব্যাপী ঢাকা মহানগরসহ সারা দেশে বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে গত ২৬ নভেম্বর সোমবার বিকাল ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি-র সম্মুখস্থ স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে যোন হয়রানী ও ধর্ষণ প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক এক আলোচনা সভা ও পোস্টার প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আয়শা খানমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েরর মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান। বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি (শিক্ষা) প্রফেসর ড. নাসরীন আহমেদ, টিএসসি’র উপদেষ্টা ড. সৌমিত্র শেখর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্টুডেন্ট লিগ্যাল ফোরামের কো-অর্ডিনেটর নাজিফা মুনিয়াদ কাদের, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আসাদ, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাড. দীপ্তি রানী সিকদার প্রমুখ। এ সময় স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন সঞ্চিতা রানী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা সোসাইটির পক্ষ থেকে নারীর প্রতি সহিংসতা স্বরূপ ও আমাদের করণীয়: বাংলাদেশ প্রেক্ষিত বিষয়ে গবেষণা ফলাফল উপস্থাপন করবেন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নাট্য সংসদ একটি নাটিকা মঞ্চায়ন করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মহিলা পরিষদের গবেষণা কর্মকর্তা আফরুজা আরমান। অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীসহ মোট ৩০০ শতাধিক অংশগ্রহণ করেন।

প্রধান অতিথির বক্ত্যবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান বলেন, সমাজের উপেক্ষিত সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে আমাদের সমাধানের চেষ্টা করে এগিয়ে যেতে হবে। প্রতিটি মেয়ের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের জায়গাটি সক্রিয় থাকলে আমাদের নিরাপত্তা ও নির্যাতনের হার কমতে পারে। সমাজে প্রতিবন্ধকতা থাকবে, আমাদের সব প্রতিবন্ধকতা দূর করে এগিয়ে যাবে। তিনি বাংলাদেশ মহিলা পরিষদকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এ অনুষ্ঠানটি আয়োজন করার জন্য ধন্যবাদ জানান।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি নারীনেত্রী আয়শা খানম বলেন, আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষে আজকের কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি, প্রোভিসি এবং তরুণ-তরুণী শিক্ষার্থীরা পিতৃতান্ত্রিক দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনের উপর জোর দিয়েছেন। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পিতৃতান্ত্রিক এই দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনের জন্য ধারাবাহিকভাবে বহুমাত্রিক কর্মপদ্ধতি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, নারী-পুরুষের বৈষম্য বিভাজন দূর করতে হবে। নারীর গৃহশ্রমের স্বীকৃতি দিতে হবে। পরিবার থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সর্বত্র নারী-পুরুষের সমতাপূর্ণ পরিবেশ তৈরি করতে হবে। রাষ্ট্রের বিভিন্ন পর্যায়ে সমতা প্রতিষ্ঠার জন্য যথাযথ আইন প্রণয়ন করতে হবে। সকলে মিলে ৭২-এর সংবিধানের আলোকে মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় কাজ করতে হবে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্ত¡রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থীদের যৌন নিপীড়ন ও সহিংসতা মুক্ত ক্যাম্পাস গড়ে তোলার আহŸান জানান। তিনি এক্ষেত্রে তরুণ শিক্ষার্থীদেরকে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কর্মকাÐের সাথে যুক্ত হওয়াসহ সকল মানবিক গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যুক্ত হয়ে সমাজ প্রগতিকে অগ্রসর করার আহ্বান জানান।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরো প্রধান।