তরুণ তরুণীদের উচ্ছাস আনন্দে রাঙামাটিতে অনুষ্ঠিত হলো ঐতিহ্যবাহী সাংগ্রাই জলোৎসব

27

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

‘পার্বত্য অঞ্চলে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতিসত্তার ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও সংস্কৃতি বিকাশে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বানের মধ্যদিয়ে প্রাণোচ্ছল ও আনন্দঘন পরিবেশে রাঙামাটিতে সার্বজনীন সাংগ্রাই জলোৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাঙামাটি জেলার সর্ববৃহৎ এ উৎসব আয়োজনে মারমা যুবক যুবতীরা একে অপরের প্রতি জল ছিঁটিয়ে পুরোনো বছরের দুঃখ, গ্লানি, বেদনা ধুয়ে-মুছে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয়ে দিনভর উচ্ছসিত ছিল।

মঙ্গলবার দুপুরে রাঙামাটি চিংহ্লা মং মারী স্টেডিয়ামে মারমা সংস্কৃতি সংস্থা (মাসস) এর আয়োজনে ঐতিহ্যবাহি এই জলকেলির উদ্বোধন করেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও রাঙামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

মারমা সংস্কৃতি সংস্থা (মাসস) সভাপতি ও রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরীর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী সংসদ সদস্য বেগম ওয়াসিকা আয়েশা খান, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য জ্বরতী তঞ্চঙ্গ্যা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ, রাঙামাটির রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সোহেল আহমেদ, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন খান, পুলিশ সুপার মীর আবু তৌহিদ সহ সরকারী-বেসরকারী বিভিন্ন দপ্তরের উদ্বর্তন কর্মকর্তাগণ ও রাজনৈতিক, সামাজিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতি বাংলা পঞ্জিকার নববর্ষ বরণ এবং পুরানো বর্ষকে বিদায় ঘিরে মারমা সম্প্রদায় সাংগ্রাঁই জল উৎসবের আয়োজন করে থাকে। উৎসব ঘিরে মঙ্গলবার দিনভর হাজারো নারী-পুরুষের কলরবে মুখরিত ছিল চিংহ্লা মং মারী স্টেডিয়াম মাঠ। সকলের পরণে ছিল মারমাদের ঐতিহ্যবাহী পোষাক।

অনুষ্ঠানে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, দেশের শান্তি ও উন্নয়নের লক্ষ্যে এবং মানুষের কল্যাণের জন্য আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তিনি বলেন, পুরাতন বছরকে বিদায় জানিয়ে নতুন বছরের জন্য আমাদের শপথ হবে দেশ মাতৃকার সমৃদ্ধি। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি ও উন্নয়নের জন্য বিশেষ দৃষ্টিভঙ্গি থাকার কারণে পার্বত্য চট্টগ্রামে এরকম অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে।

জল উৎসব উদ্বোধন করার সময় রাঙামাটির সংসদ সদস্য এবং বন, পরিবেশ ও জলবায়ু বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার বলেন, সাংগ্রাই উৎসব শুধু মারমা সম্প্রদায়ের নয় এই উৎসব সকলের। এ উৎসব এ এলাকায় বসবাসরত সকল সম্প্রদায়ের উৎসবে পরিণত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে মাসস মারমা সম্প্রদায়ের মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তি বিতরণ করে। সব শেষে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।