তৈয়বিয়া খানকায় বড় পীরের ওরশ ও কোরআনে হাফেজদের দস্তারবন্দী

434

॥ ইকবাল হোসেন ॥
গাউসে পাক বড় পীর হযরত আবদুল কাদের জিলানী (রাঃ)-এর পবিত্র ওরশ শরীফ উপলক্ষে ফাতেহা অনুষ্ঠিত হয়েছে। একই সাথে মাসিক গেয়ারভী শরীফ ও গাউসে জামান হযরতুলহাজ্ব আল্লামা হাফেজ ক্বারী সৈয়দ মুহাম্মদ তৈয়ব শাহ (রহঃ)-এর আম্মার বার্ষিক ফাতেহা অনুষ্ঠিত হয়।

মঙ্গলবার মাগরিবের নামাজের পর শহরের রিজার্ভ মুখস্থ খানকায়ে তৈয়বিয়া তাহেরিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসায় অনুষ্ঠিত ফাতেহা শরীফে মাদ্রাসার তিনজন হাফেজকে দস্তারবন্দী করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় গাউসিয়া কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব মাহবুব এলাহী শিকদার। জেলা গাউসিয়া কমিটির সদস্য সচিব মুহাম্মদ আবু সৈয়দের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন, রাঙামাটি জেলা আহলে সুন্নাতের সভাপতি মাওলানা এম ও মুস্তফা হেজাজী, জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা ক্বারী ওসমান গনি চৌধুরী, তৈয়বিয়া আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ হাজী মোঃ আখতার হোসেন চৌধুরী, কলেজ গেইট জামে মসজিদের খতিব মাওলানা হাফেজ ক্বারী সুলতান মাহমুদ আল ক্বাদেরী, তৈয়বিয়া পাহাড় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা রেজাউল করিম।

জেলা গাউসিয়া কমিটির সদস্য মাওলানা শফিউল আলম আল ক্বাদেরীর পরিচালনায় এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা গাউসিয়া কমিটির সদস্য হাজী মোঃ আবদুল করিম খান, হাজী মোঃ জসিম উদ্দিন, হাজী মোঃ নাছির উদ্দিন, জেলা গাউসিয়া কমিটির সাবেক সভাপতি হাজী মোঃ জানে আলম, আবদুল হালিম ভোলা সওদাগর, হাজী আলাউদ্দিন সওদাগর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল বাবুল, খানকা শরীফের তত্ত্বাবধায়ক হাফেজ মুহাম্মদ মফিজুল হক প্রমূখ।

আলোচনা সভা শেষে মাদ্রাসার তিনজন হাফেজকে দস্তারবন্দী করা হয়। হাফেজরা হলেন, মোঃ নাহিদুল ইসলাম, আলী হোসাইন নিশাত ও মোঃ আমিনুল ইসলাম। অনুষ্ঠান শেষে দেশ ও জাতির কল্যাণে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।