ধর্ম সভায় নন্দপাল মহাস্থবির : কলকাতায় আন্তর্জাতিক বনবিহার ও চাকমা ভিলেজ প্রতিষ্ঠা করা হবে

293

tharmo

স্টাফ রিপোর্টার, ১৬ মার্চ ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : বৌদ্ধরত্ন শ্রীমৎ নন্দপাল মহাস্থবির বলেছেন, বুদ্ধগয়ার পরে এবার ভারতের কলকাতা ম্যাগাসিটির পাশে আর্ন্তজাতিক মানের আরো একটি বন বিহার প্রতিষ্ঠা করা হবে। আর্ন্তজাতিক অঙ্গণে বুদ্ধ ধর্ম ও বনভান্তের বাণী প্রচারের সুবিধার্থে এই মহতী উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।  বন বিহারের পাশে একটি থাইমন্দির এবং একটি চাকমা ভিলেজ গড়ে তোলার পরিকল্পনা রয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রামসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে যারা তীর্থ ভ্রমণ এবং চিকিৎসার্থে ভারতের যায় তারা সেখানে গিয়ে সুন্দরভাবে থাকতে পারবে। এই মহতী উদ্যোগে ধনী দরিদ্র সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। সোমবার খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলার চিত্রকুমার কার্বারী পাড়ায় আয়োজিত ধর্মীয় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মহাজন পাড়া গৌতম বুদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ প্রজ্ঞাজ্যোতি স্থবিরের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সুমনাতিষ্য স্থবির, সুমনাসার, রতœশ্রী ভিক্ষু, মহালছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিমল কান্তি চাকমা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাকলী খীসা প্রমুখ। ধর্মসভায় স্থানীয় মুরুব্বী পরচন্দ্র কার্বারী, সমরেন্দ্র চাকমা, বিজয় বসন্ত, অজয় বিকাশ দেওয়ানসহ মহালছড়ি উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে কয়েক’শ নারী পুরুষ ও ধর্মপ্রাণ দায়ক-দায়িকা অংশ নেন। ৭ম বারের মত মাঙ্গলিক মহামঙ্গলসুত্র শ্রবণ, বুদ্ধমুর্তি দান, সংঘ দান, অষ্ট পরিষ্কার দান, হাজার প্রদীপ দান করা হয়।

পোস্ট করেনন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান