নানিয়ারচরে ইউপি নির্বাচনে বিভিন্ন ইউনিয়নে বিজয়ী হলেন যারা

374

॥ মাহাদী বিন সুলতান ॥

চতুর্থ ধাপে রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন-২০২১ সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, আনসার, পুলিশ ও বিজিবি’র কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। রোববার সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ভূপতি রঞ্জন চাকমা বেসরকারিভাবে নানিয়ারচর, বুড়িঘাট ও ঘিলাছড়ি এবং উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ও রিটার্নিং অফিসার তপন কান্তি ত্রিপুরা সাবেক্ষ্যং ইউনিয়নের ফলাফল ঘোষণা করেন।

এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহমুদা বেগম, নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী মেজিষ্ট্রেট শিউলি রহমান তিন্নী, লংগদু উপজেলা নির্বাহী মেজিষ্ট্রেট মাঈনুল আবেদীন, নানিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ সুজন হালদারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। নানিয়ারচর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা হলেনঃ-
১নং সাবেক্ষ্যং ইউনিয়নঃ চেয়ারম্যান প্রার্থী- সুপন চাকমা ওরফে সুশীল জীবন চাকমা। তার প্রতীক চশমা।

৩৫২৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শান্তি জীবন চাকমা আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ১৭৯২ ভোট। এদিকে সংরক্ষিত মহিলা ১আসনে (১,২ ও ৩ ওয়ার্ড) লক্ষী রানী চাকমা কলম প্রতীকে ৮০৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সুইটি চাকমা হেলিকপ্টার প্রতীকে পেয়েছেন ৭৪৩ ভোট।সংরক্ষিত মহিলা ২আসনে (৪, ৫ ও ৬ ওয়ার্ড) একক প্রার্থী হিসেবে জয়লাভ করেছেন রুমি চাকমা। এছাড়াও সংরক্ষিত মহিলা ৩আসনে (৭,৮ ও ৯) জিনু প্রভা খীসা কলম প্রতীকে ৯৫৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিমা চাকমা তালগাছ প্রতীকে পেয়েছেন ৮৭৪ ভোট।

সাধারণ সদস্য ০১ নং ওয়ার্ড- সৌরভ দেওয়ান ভ্যান গাড়ি প্রতীকে ২৩৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রতœদ্বীপ চাকমা ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ১৭৪ ভোট। ০২ নং ওয়ার্ডে বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীকে নীতু চাকমা ২৭০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রমেশ চাকমা মোরগ প্রতীকে পেয়েছেন ১৫৩ ভোট। ০৩ নং ওয়ার্ডে শোভা রঞ্জন চাকমা তালা প্রতীকে ১৭৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শান্তি বিকাশ চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ১৭৪ ভোট।

০৪ নং ওয়ার্ড-এর ভুবন জয় চাকমা মোরগ প্রতীকে ৩৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিনিময় চাকমা ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ৩১৯ ভোট। ০৫ নং ওয়ার্ডে অতুল বিকাশ দেওয়ান একক প্রার্থী হিসেবে জয়লাভ করেছেন। ০৬ নং ওয়ার্ড-এর প্রীতি রন্জন চাকমা একক প্রার্থী হিসেবে জয়লাভ করেছেন।
০৭ নং ওয়ার্ড-এর তম্ময় চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে ৩১৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শংকর চাকমা ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ২৫০ ভোট। ০৮ নং ওয়ার্ড-এর উত্তম প্রিয় চাকমা বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীকে ৩০৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অনাতি চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে ২২৯ ভোট পেয়েছেন। ০৯ নং ওয়ার্ডের রিপন চাকমা একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

২নং নানিয়ারচর সদর ইউনিয়নঃ চেয়ারম্যান প্রার্থীঃ- বাপ্পি চাকমা সতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকে ৩৬৭৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত দর্শন চাকমা ঝন্টু নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৩৬৫১ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ১নং আসনের (১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ড) মিতা চাকমা কলম প্রতীকে ১৩০৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোছাঃ রওশানারা বেগম সূর্যমুখী ফুল প্রতীকে পেয়েছেন ২৯৮ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ২নং আসনের (৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ড) পারুল চাকমা হেলিকপ্টার প্রতীকে ১৬৯৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী পদ্মিনী দেওয়ান সূর্যমুখী ফুল প্রতীকে পেয়েছেন ৭১২ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ৩নং আসনের (৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড) পৃতিবালা চাকমা কলম প্রতীকে ১৫৭০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মায়া রানী চাকমা বই প্রতীকে পেয়েছেন ১২১৪ ভোট।

সাধারণ ইউপি সদস্য ০১নং ওয়ার্ড- এর প্রিয়তোষ দত্ত ফুটবল প্রতীকে ৫০৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রিপন কান্তি দাশ টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ২৫১ ভোট। ০২ নং ওয়ার্ড-এর প্রভাত চন্দ্র চাকমা আপেল প্রতীকে ১৪২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সঞ্চয় চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ১৩২ ভোট। ০৩ নং ওয়ার্ড-এর পুর্ন কুমার চাকমা ফুটবল প্রতীকে ৩১৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তাপস চাকমা (টিউবওয়েল) পেয়েছেন ১৬১ ভোট। ০৪ নং ওয়ার্ড-এর পরেশ চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে ৫০৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন এবং মোরগ প্রতীকে বিমল চাকমা পেয়েছেন ২৭৬ ভোট।

০৫ নং ওয়ার্ডের রিটন চাকমা মোরগ প্রতীকে ৩৪৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোঃ আছমত আলী ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ২৭৫ ভোট।

০৬ নং ওয়ার্ডের হিমাদ্রি চাকমা ফুটবল প্রতীকে ২৭৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তপন বিকাশ চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ২৩৪ ভোট। ০৭ নং ওয়ার্ডের সঞ্জয় বিকাশ চাকমা মোরগ প্রতীকে ২০৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রিতিময় চাকমা (ফুটবল) পেয়েছেন ২০৫ ভোট। ০৮ নং ওয়ার্ডের রুপক চাকমা ফুটবল প্রতীকে ১০২৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ললিত মোহন চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ২০৭ ভোট। ০৯ নং ওয়ার্ডের দিগন্ত চাকমা ফুটবল প্রতীকে ৫৭৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমিরন চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে ২৯৭ ভোট পেয়েছেন।
৩নং বুড়িঘাট ইউনিয়নঃ চেয়ারম্যান প্রার্থীঃ- প্রমোদ খীসা আনারস প্রতীকে ৪২৪৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মোঃ আব্দুল ওহাব হাওলাদার নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ২৪৮৭ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ১নং আসনের (১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ড) নাছিমা বেগম বই প্রতীকে ১২৯৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কাজলী ত্রিপুরা মাইক প্রতীকে পেয়েছেন ১২২৭ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ২নং আসনের (৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ড) খুলনা দেবী খীসা বই প্রতীকে ৮৯৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হেলিকপ্টার প্রতীকে নেকজান বেগম পেয়েছেন ৬২০ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ৩নং আসনের (৭,৮ ও ৯নং ওয়ার্ড) কল্পনা চাকমা কলম প্রতীকে ১০৪১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সুবিনা চাকমা তালগাছ প্রতীকে পেয়েছেন ৬৮৭ ভোট।

ইউপি সাধারণ সদস্য ০১ নং ওয়ার্ড- মোরগ প্রতীকে মোঃ আবুল মালেক ৪৬৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোঃ সহিবুল ইসলাম টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ৩০৩ ভোট। ০২ নং ওয়ার্ড- মোঃ আব্দুস সালাম টিউবওয়েল প্রতীকে ৮৭৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোঃ নুরুল ইসলাম মোরগ প্রতীকে পেয়েছেন ৬৭৩ ভোট। ০৩ নং ওয়ার্ডের তুফান চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে ২৯৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী আনন্দ চাকমা ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ২৭৬ ভোট। ০৪ নং ওয়ার্ড-এর মংসানু মার্মা তালা প্রতীকে ৪৪২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অংশাপ্রু মার্মা মোরগ প্রতীকে পেয়েছেন ২৬৪ ভোট।

০৫ নং ওয়ার্ডের মোঃ মোস্তফা খান মোরগ প্রতীকে ২৪৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোঃ বাবুল সরদার টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ২০৪ ভোট। ০৬ নং ওয়ার্ডের মোঃ মিজানুর রহমান টিউবওয়েল প্রতীকে ৩৯৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোঃ শফি ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ১৬৪ ভোট। ০৭ নং ওয়ার্ড-এর ইন্টন চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে ৩৩২ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী ভাগ্যচন্দ্র তালুকদার (আপেল) পেয়েছেন ২৪১ ভোট। *০৮ নং ওয়ার্ড-এর পুরু রঞ্জন চাকমা একক প্রার্থী হিসেবে জয়লাভ করেছেন।

০৯ নং ওয়ার্ড-এর রঞ্জন বিকাশ চাকমা ও একক প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন।
৪নং ঘিলাছড়ি ইউনিয়নঃ চেয়ারম্যান প্রার্থীঃ- অমল কান্তি চাকমা আনারস প্রতীকে ২৬০১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। মিন্টু দেওয়ান ঘোড়া প্রতীকে পেয়েছেন ২৩৭৮ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ১নং আসনের ( ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ড) মধু মিতা চাকমা একক প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন।

*সংরক্ষিত মহিলা ২নং আসনের (৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ড) বাসন্তি চাকমা সূর্যমুখী ফুল প্রতীকে ৮৩৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী চম্পা চাকমা তালগাছ প্রতীকে পেয়েছেন ৭৭৮ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ৩নং আসনের (৭,৮ ও ৯নং ওয়ার্ড) রমিতা চাকমা (কলম) প্রতীকে ৬৬০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নমিতা চাকমা (মাইক) প্রতীকে পেয়েছেন ৬৪০ ভোট।

ইউপি সাধারণ সদস্য ০১ নং ওয়ার্ড এর আলোময় চাকমা একক প্রার্থী হিসেবে জয়লাভ করেছেন। ০২ নং ওয়ার্ড-এর সুধা বিন্দু চাকমা।(ফুটবল) প্রতীকে ৩৯৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নাগরী চাকমা (মোরগ) পেয়েছেন ১৮৪ ভোট। ০৩ নং ওয়ার্ড-এর প্রিতি আলো চাকমা টিউবওয়েল প্রতীকে ৪৫৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। রিন্টু চাকমা (ফুটবল) পেয়েছেন ২২৬ ভোট। ০৪ নং ওয়ার্ড- কুঞ্জ ধন চাকমা (মোরগ) প্রতীকে ৩২৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নীরব চাকমা (টিউবওয়েল) পেয়েছেন ২৪৮ ভোট।

০৫ নং ওয়ার্ড-এর সুবিলাশ চাকমা (ফুটবল) প্রতীকে ২৭৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। প্রনয় শেখর চাকমা (মোরগ) পেয়েছেন ২৩০ ভোট। ০৬ নং ওয়ার্ড-এর বিজয় লাল চাকমা (মোরগ) ৪৩০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন এবং প্রিতি চাকমা (টিউবওয়েল) পেয়েছেন ৪১৪ ভোট। ০৭ নং ওয়ার্ডের দিপায়ন খীসা (ফুটবল) ৩৫২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। যোগেন্দ্র লাল চাকমা (মোরগ) পেয়েছেন ১৫৭ ভোট। ০৮ নং ওয়ার্ড-এর অনল বিজয় চাকমা একক প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন। ০৯ নং ওয়ার্ড-এর বিপিন চাকমা (টিউবওয়েল) প্রতীকে ২১২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। অন্যদিকে তালা প্রতীক নিয়ে রুপম চাকমা পেয়েছেন ১৮০ ভোট।