নানিয়ারচর ১৮মাইল শাসনোদ্বয় বন বিহারে কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত

469

।।মাহাদী বিন সুলতান।।

রাঙামাটির নানিয়ারচর ১৮মাইল শাসনোদ্বয় বন বিহারে কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের বৃহৎ এই দানোৎসব রোববার দুপুরে নানিয়ারচর উপজেলার ১৮মাইল এলাকায় শুভ দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা। উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান কে এসময় ফুল দিয়ে বরণ করে নেন বিহার পরিচালনা কমিটি।

এসময় ভিক্ষু সঙ্ঘ প্রধান রাজবন বন বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ প্রজ্ঞালঙ্কার মহাথের, শ্রীমৎ সত্য প্রেম মহাস্থবির, শ্রীমৎ মেত্তাবংশ মহাস্থবির, ১৮মাইল শাসনোদ্বয় বন বিহারের অধ্যক্ষ কৌন্ডিন্যা ভান্তে, বিহার পরিচালনা বীরনন্দ চাকমা, সম্পাদক দিগন্ত চাকমা, রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগ এর সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমাসহ বিভিন্ন বিহার থেকে আমন্ত্রিত ভিক্ষু, হাজারো দায়ক দায়ীকা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নিখিল কুমার বলেন, দেখতে দেখতে ১৮মাইল শাসনোদ্বয় বন বিহারের ১৩টি বছর পূর্ণ হলো। সেই ছোট্ট বিহারে এখন আগের তুলনায় অনেক দায়ক দায়িকা পূণ্য করতে আসে। আমি যখন জেলা পরিষদের দায়িত্বে ছিলাম তখন আমি এই এলাকার উন্নয়নে কাজ করেছি। উন্নয়নমূলক এসব কাজ আমি একা করতে পারিনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বদিচ্ছাই এসব উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বিশ্বাস করেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান এসময় বৌদ্ধ ধর্মীয় ভান্তের প্রতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু ও সুস্থ্যতা কামনা করে প্রার্থনা করার আহ্বান জানান। শনিবার হতে শুরু হওয়া ২দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানে কঠিন চীবর দান, বুদ্ধমূর্তী দান, অষ্টপরিষ্কার দান, হাজার প্রদীপ দান, আকাশ প্রদীপ দান, পিন্ড দান, কল্পতরু দান, সংঘ দানসহ নানাবিধ দান সম্পন্ন করা হয়। মীনা চাকমা সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে পূজনীয় ভিক্ষু সংঘের সদস্যরা স্বধর্ম দেশনা প্রদান এবং বিশ্ব শান্তি কামনায় বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।