নৈতিক চরিত্র গঠন ও আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠার জন্য মাদ্রাসা শিক্ষাই উত্তম >আল আমিন মাদ্রাসার বার্ষিক অনুষ্ঠানে ডিসি মামুন

462
dav

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥ ৩০ জানুয়ারি ১৯

রাঙামাটির জেলাপ্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ বলেছেন, নৈতিক চরিত্র গঠন ও আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠার জন্য বর্তমান সময়ে যুব সমাজের জন্য মাদ্রাসা শিক্ষাই উত্তম। এই শিক্ষার মাধ্যমে যেমন ক্যারিয়ার বিল্ডআপ করা সম্ভব তেমনি ধর্মীয় জ্ঞান অর্জন ও নৈতিক চরিত্র গঠনের বিষয়ে সম্যক ধারণাও রপ্ত করা সহজ। ‘মাদ্রাসায় লেখাপড়া করে আমার অনেক পরিচিতজনকে সরকারি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব তথা সচিব এমপির মতো দায়িত্বও পালন করতে দেখেছি বলে তিনি উল্লেখ করেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, সকল ক্ষেত্রেই ভালো এবং মন্দ, আলো এবং অন্ধকার দিক রয়েছে, আমাদের উচিৎ হবে আলোর দিক-ভালোর দিক গ্রহণ করে নেতিবাচক দিক পরিহার করা। শিক্ষার্থীদের বিশ্ব পরিবর্তনের সাথে পরিচিত করানোর উপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, জ্ঞান ভিত্তিক শিক্ষা ব্যবস্থাই পারে একটি জাতিকে উন্নতির চরম সোপানে পৌঁছে দিতে।

বুধবার (৩০ জানুয়ারি) রাঙামাটি শহরের আল আমিন ফাজিল (ডিগ্রী) মডেল মাদ্রসার বার্ষিক পুরস্কার বিতরণ ও পরীক্ষার্থীদের দোওয়া উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মামুন এই মন্তব্য করেন। তিনি অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা সন্তানদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠিয়েই যদি নিশ্চিন্তে বসে থাকেন, তবে এই সন্তান বিপথেও যেতে পারে বা ভালো শিক্ষার্থী নাও হতে পারে। তাই সন্তানদের সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর রাখতে হবে। তাদের পড়াশোনার খোঁজ-খবর রাখা শিক্ষকদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ করা ছাড়াও আপনার সন্তান কোথায় যায়, কাদের সাথে মিশে কেমন চরিত্রের মানুষদের বন্ধু বানায় তার খোঁজ রাখা এখন সময়ের দাবি।

oznor

তিনি পিছিয়ে পড়া পার্বত্যাঞ্চলের রাঙামাটি জেলায় আল আমিন মাদ্রাসার মতো একটি বৃহৎ আকারের উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠায় উচ্ছাস প্রকাশ করে বলেন, ডিগ্রী মানের এই প্রতিষ্ঠান পাহাড়ে শিক্ষার বিস্তারে আগামী দিনে উল্লেখ যোগ্য ভ’মিকা পালন করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। তিনি উল্লেখ করেন, এখন যেহেতু মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের আলীম, ফাজিল ও কামিলকে উচ্চ মাধ্যমিক, ¯œাতক ও ¯œাতকোত্তর সমমান প্রদান করা হয়েছে তাই মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের নিজেদের সংকোচিত ভাবার কোনো কারণ নেই। তিনি মাদ্রসার প্রয়োজনে জেলা প্রশাসন থেকে সকল ধরণের সহযোগীতা প্রদানের আশ্বাস দিয়ে বলেন, এই মাদ্রাসার অবকাঠামো একটি কামিল মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করার উপযোগী তাই মাদ্রাসাটিকে কামিল পর্যায়ে উন্নীত করতে তিনি সম্ভাব্য সকল সহযোগীতা করবেন এবং অদুর ভবিষ্যতে এই মাদ্রাসা কামীল পর্যায়ে উন্নীত হয়ে পাহাড়ের প্রথম ¯œাতকোত্তর মাদ্রসায় পরিণত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

মাদ্রসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও ইসলামিক সেন্টারের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এডভোকেট মোখতার আহমেদের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাদ্রসার অধ্যক্ষ মাওঃ নুরুল আলম ছিদ্দিকী। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, পার্বত্য চট্টগ্রামে সাংবাদিকতার পথিকৃত দৈনিক গিরিদর্পণ সম্পাদক একেএম মকছুদ আহমেদ এবং রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক রাঙামাটি সম্পাদক আনোয়ার আল হক।

মাদ্রসার উপাধ্যক্ষ মাওলানা জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বার্ষিক পুরস্কার বিতরণ ও দোওয়া অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, রাঙামাটি পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোঃ জামাল উদ্দিন, বিএম ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ মাহমুদুন্নবী দুলাল ও মাইনীমুখ আলীম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওঃ ফেরদৌস আলম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিচালনা কমিটির সদস্য শামসুল হুদা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন।

শিক্ষার্থীদের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতাসহ শ্রেণিতে কৃতিত্বের স্বাক্ষরের জন্য বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলেন দেন প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ। দাখিল পরীক্ষার্থীদের জন্য দোওয়া ও অতিথিদের হাতে উপহার বিতরণের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ হয়।