পরিস্থিতি সামল দিতে সাজেকে জরুরি আইন শৃঙ্খলাসভা

403

p....3

বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি – ৯ মার্চ ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নে রুইলুই পর্যটন কেন্দ্র ও সাজেক-বাঘাইহাট সড়কে আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি অবনতি হওয়ায় জরুরি মতবিনিময়সভা আয়োজন করা হয়। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় বাঘাইহাট সেনা জোনের উদ্যোগে মাচালং সেনা ক্যাম্প অডিটরিয়ামে সাজেকের জনপ্রতিনিধি, হেডম্যান-কার্বারী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে এ মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বাঘাইহাট সেনা জোনের অধিনায়ক লে. কর্নেল আলী হায়দার সিদ্ধিকীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন সাজেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অতুলাল চাকমা, সাজেক থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন, রুইলুই মৌজার হেডম্যান লাল থাংয়া লুসাই, মাচালং নি¤œমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রিসেন্ট চাকমা, রুইলুইপাড়া হোটেল ব্যবসায়ী অনিত্য ত্রিপুরা ও মাচালং এলাকার গণ্যমান্যব্যক্তি আর্জেন্ট চাকমা প্রমূখ।

সাজেক থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানান, সম্প্রতি সাজেক-বাঘাইহাট সড়কে গাড়ি পোড়ানো, চাঁদাবাজি ও সড়কে গাড়িচাপায় স্কুল শিক্ষার্থীর নিহত ঘটনায় একটি স্বার্থনেষী মহল নানা ধরণে উস্কানিমূলক কার্যক্রম চালাচ্ছে। এছাড়া সড়কে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা উত্তোলন ও রুইলুই পর্যটন কেন্দ্র থেকে চাঁদা দাবি করা হচ্ছে। এনিয়ে এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি দিকে যাচ্ছে। সামনে যেন এসব ঘটনা পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেজন্য সবাইকে শর্তক থাকার জন্য সভা ডাকা হয়েছে।

বাঘাইহাট সেনা জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল আলী হায়দার সিদ্ধিকী বলেন, আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারছি চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীরা সংখ্যায় খুবই কম। যাঁরা উন্নয়ন চাইনা তাঁরাই সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজি  করছেন। তাঁদের রোধ করতে গেলে এলাকার জনপ্রতিনিধি ও মৌজা-গ্রাম প্রধানদের সহযোগিতা প্রয়োজন। সাজেকে রুইলুই পর্যটন কেন্দ্র গড়ে ওঠায় স্থানীয় শত শত মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। আগামীতে আরো পর্যটন কেন্দ্র আকর্ষণ করার পরিকল্পনা রয়েছে।

থানা সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক দিন ধরে রুইলুই পর্যটন কেন্দ্রের হোটেল,রিসোর্ট,কটেজ ও স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদাবাজরা টাকা দাবি করে আসছে। গত ১৮ ফেব্রুযারি সাজেক-বাঘাইহাট সড়কের ডাব আদাম এলাকায় গাড়িচাাপয় স্কুল ছাত্রী নিহত ঘটনায় অবরোধ ও ৩০ ডিসেম্বর সাজেক-বাঘাইহাট সড়কে নয় নম্বর পাড়া এলাকায় একজন সেনা কর্মকর্তাকে নামিয়ে গাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তার পর থেকে সাজেক রুইলুই পর্যটন কেন্দ্রে পর্যটকের গাড়ি নিরাপত্তা বাহিনীর পাহারায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

পোস্ট করেনন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান