পার্বত্য চট্টগ্রামে দুর্গম এলাকার প্রতিটি ঘর বিদ্যুতের আওতায় আনা হবে: বীর বাহাদুর

326

॥ মো. নুরুল কবির ॥

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেছেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়ন বান্ধব সরকার। এ সরকার সকল এলাকার সার্বিক উন্নয়ন করে বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার তথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে আন্তরিক। তাই পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রত্যন্ত জনপদ থেকে জেলা সদর-সর্বত্র উন্নয়ন সাধন করছে।

শুক্রবার দুপুরে বান্দরবানের রুমা উপজেলার মুনলাই পাড়ায় এলজিইডি, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড, বিদ্যুৎ বিভাগ ও পার্বত্য জেলা পরিষদের তত্ত্বাবধানে প্রায় ৩৩ কোটি টাকার ২২টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বীর বাহাদুর এসব কথা বলেন।

উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তুর স্থাপন প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে সেতু উদ্বোধন, রাস্তা নির্মাণ উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তুর স্থাপন এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নির্মাণ কাজের উদ্বোধন।

বীর বাহাদুর আরও বলেন, বান্দরবানকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। এরই অংশ হিসেবে পাহাড়ের প্রত্যন্ত জনপদকে আলোকিত করার জন্য বিদ্যুতের ব্যবস্থা করেছেন। বান্দরবানের প্রত্যন্ত জনপদ রুমার মুনলাই পাড়াকে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত করার জন্য বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

পার্বত্য মন্ত্রী জানান, সরকার ইতিমধ্যে পার্বত্য চট্টগ্রামের জন্য বিদ্যুতের জন্য প্রায় ৫৬৫ কোটি টাকার কাজ সম্পন্ন করেছেন। মুনলাই পাড়া একটি প্রত্যন্ত জনপদে বিদ্যুতের ব্যবস্থা করায় এখন পাহাড়ি জনগোষ্ঠি বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবেন।

মুনলাই পাড়ায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রুমা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি উহ্লাচিং মারমা। এসময় আরও বক্তব্য রাখেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিদ্যুৎ প্রকল্প পরিচালক (পিডি) উজ্জ্বল বড়–য়া, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদেও মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম কাউছার হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজা সরোয়ার, বান্দরবান এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী নাজমুস সাদাত জিল্লুর রহমান, রুমা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মামুন শিবলী, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের প্রকল্প পরিচালক আবদুল আজিজ, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদেও নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জিয়াউর রহমান, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বান্দরবান ইউনিটের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন মোহাম্মদ ইয়াসির আরাফাত এবং এলজিইডি’র সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী মো. জামাল উদ্দিন।

এদিকে বান্দরবান এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী নাজমুস সাদাত জিল্লুর রহমান জানান, এলজিডিইর তত্ত্বাবধানে ২২ কোটি ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৯টি প্রকল্প উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন পার্বত্যমন্ত্রী।
পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডেও তত্ত্বাবধানে ৬ কোটি ২৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪টি প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়। বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের তত্ত্বাবধানে প্রায় তিন কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে ৮টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর এবং বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধানে ৯৯ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়।
বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড-রাঙামাটির প্রকল্প পরিচালক উজ্জ্বল বড়–য়া জানান, ৯৯ লাখ টাকা ব্যয়ে বিদ্যুৎ প্রকল্পের উদ্বোধনের মাধ্যমে রুমার মুনলাই পাড়ার ৬৫টি পরিবার বিদ্যুতের আওতায় আসবে।