পাহাড়ের মানুষ সরাসরি উপকৃত হওয়ার মতো প্রকল্প নিন : নব বিক্রম

579

dr ..p...3-1

স্টাফ রিপোর্টার, ২০ জুলাই ২০১৬ : পাহাড়ের প্রার্ন্তিক জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়নেই সৃষ্ঠি হয়েছিলো পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড নামক প্রতিষ্ঠানটি। এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমেই পার্বত্যবাসী তাদের ভাগ্যোন্নয়নের সুযোগ পেয়ে আসছে। ইতিমধ্যেই পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের মাধ্যমে পাহাড়ের প্রার্ন্তিক জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়নে অনেকটা পরিবর্তন এসেছে। ভবিষ্যতেও যাতে করে এই ধারা আরো বেশি করে অব্যাহত থাকে এবং সরাসরি পার্বত্যবাসী উপকৃত হয়, সেই লক্ষ্যে নতুন ২০১৬-১৭ অর্থবছরে আরো নতুন নতুন প্রকল্প-স্কিম গ্রহণ করা হচ্ছে। এসকল গৃহিক প্রকল্পগুলো থেকে যে সকল প্রকল্প পার্বত্য অঞ্চলের জনসাধারণ সরাসরি উপকৃত হবে; সেসকল প্রকল্প-স্কিম গ্রহণের সময় অগ্রাধিকার অগ্রাধিকার দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা-এনডিসি।

মঙ্গলবার সকাল ১১.০০ টায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে পরামর্শক কমিটি-এর সভায় তিনি এ কথা বলেন। তিনি উক্ত সভার সভাপতিত্ব করেন। সভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন স্কিম/প্রকল্পসমূহ প্রথমে অগ্রাধিকার দিয়ে সীমিত আকারে ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের জন্য নতুন স্কিম/প্রকল্প নেয়া হবে বলে জানান।

সভায় মূল আলোচ্য বিষয়গুলো মধ্যে ছিল পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের গত ০৭/০৭/২০১৫ খ্রিঃ  তারিখে অনুষ্ঠিত পরামর্শক কমিটি সভার কার্যবিবরণী পাঠ ও অনুমোদন। ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীতে অন্তর্ভুক্তির জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের জন্য উন্নয়ন সহায়তা  (কোড নং- ৭০৩০) এর নতুন স্কিম/প্রকল্প বাছাই এবং বিবিধ আলোচনা। নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা বলেন, সহজেই বাস্তবায়ন করা যায় এমন স্কিম/প্রকল্প যাতে গ্রহণ করতে পারি সেইসব স্কিম/প্রকল্পের সুপারিশ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নির্বাচন করা জন্য পরামর্শক কমিটি সম্মানিত সকল সদস্যবৃন্দের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

প্রত্যেক বছরের ন্যায় নতুন অর্থ বছরের শুরুতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের পরামর্শক কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ১৬ সদস্য বিশিষ্ট একটি পরামর্শক কমিটির সভা রয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান পদাধিকার বলে পরামর্শক কমিটির সভা চেয়ারম্যান হন। তারপর তিন পার্বত্য জেলার তিনজন সার্কেল চীফ, তিন পার্বত্য জেলার তিনজন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, তিন পার্বত্য জেলার তিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, তিন পার্বত্য জেলা তিনজন হেডম্যান এবং তিন পার্বত্য জেলার তিনজন বেসামরিক গণ্যমান্য ব্যক্তি এই পরামর্শ কমিটি সদস্য।

সভায় উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো: কামাল উদ্দিন তালুকদার, বোর্ডের ভাইস-চেয়ারম্যান তরুণ কান্তি ঘোষসহ সদস্য- অর্থ শাহীনুল ইসলাম, সদস্য-বাস্তবায়ন জনাব মোঃ মনজুরুল আলম, সদস্য-পরিকল্পনা জনাব মোহাম্মদ নুরুল আলম চৌধুরী এবং সদস্য প্রশাসন জনাব আশীষ কুমার বড়ুয়া। উক্ত সভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের পরামর্শক কমিটি সভার সম্মানিত সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চাকমা সার্কেল চীফ এর প্রতিনিধি শান্তি বিজয় চাকমা, মানিকছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ¤্রাগ্য মারমা, কাউখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস.এম.চৌধুরী, খাগড়াছড়ি জেলার গোলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জ্ঞান রঞ্জন ত্রিপুরা, বাঘাইছড়ি উপজেলা খেদারমারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অমলেন্দু চাকমা, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা ১১৯ নং ভার্য্যাতলী মৌজা হেডম্যান থোয়াই অং মারমা, খাগড়াছড়ি জেলা ২৪২ নং পুজজগাং মৌজা হেডম্যান জনাব সুইহ্লাপ্রু চৌধুরী, বান্দরবান পার্বত্য জেলা গণ্যমান্য ব্যক্তি সুধাংশু চক্রবর্তী, রাঙ্গামাটি জেলা অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক বাদল চন্দ্র দে, খাগড়াছড়ি জেলা সাবেক জেলা পরিষদ সদস্য ভূবন মোহন ত্রিপুরা, রোয়াংছড়ি উপজেলা ৩১৬ নং বেতছড়া মৌজা হেডম্যান হ্লাথোয়াই হ্রী মারমাসহ বোর্ডের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পোস্ট করেন, শামীমুল আহসান- ঢাকা ব্যুরোপ্রধান- দৈনিক রাঙামাটি