পাহাড়ে যতদিন সন্ত্রাসী কার্যক্রম চলবে ততদিন সেনাবাহিনী মোতায়েন থাকবে: দীপংকর

332

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি বলেছেন, পার্বত্যাঞ্চলে যতদিন সন্ত্রাসী কার্যক্রম চলবে ততদিন সেনাবাহিনী মোতায়েন থাকবে। বৃহস্পতিবার (০২ডিসেম্বর) সকালে পার্বত্য রাঙামাটি জেলা পরিষদের আয়োজনে রাঙামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি ইন্সটিটিউট প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত শান্তিচুক্তির দুইযুগ পূর্তির অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এমপি বলেন-আওয়ামী লীগের সাথে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি শান্তিচুক্তি করেছিলো। কিন্তু তারা আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আওয়ামীলীগের নেতাদের হত্যা করছে, গুম করছে। আবার আপনারাই বলছেন আপনাদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হচ্ছে। আপনারা হত্যা করবেন কিন্তু মামলা দিতে পারবো না।

এমপি দীপংকর তালুকদার তার বক্তব্যে রাশেদ খান মেনন-কে উদ্দেশ্যে করে বলেন- আপনি বলছেন উভয় পক্ষকে ছাড় দিতে হবে। আপনি তো উনাদের বন্ধু। তাহলে আপনি তাদের বলুন ছাড় দিতে। তিনি বলেন, আওয়ামীলীগের সাথে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি শান্তিচুক্তি করেছে। কিন্তু তারা আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। শান্তিচুক্তি পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন করতে হলে আওয়ামী লীগের সাথে সমঝোতায় আসতে হবে।

জনসংহতির উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এখানে অনেক সম্প্রদায় বসবাস করে। আপনারা পার্বত্যাবাসীর পক্ষে চুক্তি করেছেন। জনসংহতির পক্ষে নয়। আপনারা গো ধরে রাখলে ২৪বছর কেন; আরও বহু বছর পার হয়ে গেলেও চুক্তি বাস্তবায়ন করা কঠিন হবে।

এমপি আরও বলেন- ফিলিস্তিন-ইসরাইলের চুক্তির পরও সংঘর্ষ হচ্ছে। কিন্তু তারা সংলাপে বসে। আপনারা সংলাপে বসতে চান না। তারপরও বলতে চাই- খুব শিগগরই চুক্তি বাস্তবায়নে ব্যাপারে বৈঠক হবে। আমাদের কথা না শুনলে চুক্তি বাস্তবায়ন দুরূহ হয়ে যাবে।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরীর সভাপতিত্বে এসময় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন- রাঙামাটি সেনা রিজিয়নের অধিনায়ক বিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ ইফতেকুর রহমান, রাঙামাটি জিজিএফআই এর অধিনায়ক কর্ণেল সলমন ইবনে এ রউফ, রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, পুলিশ সুপার মীর মোদদাছছের হোসেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশরাফুল ইসলাম।

এর আগে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী নৃত্য পরিবেশনের মধ্যে দিয়ে পার্বত্য চুক্তির বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানের শুভসূচনা করা হয়।

এদিকে সকালে শান্তিচুক্তির বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে রাঙামাটি সদর জোনের উদ্যোগে বর্ণ্যাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি সদর জোন কার্যালয় শেকে শুরু করে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবার সদর জোন কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়। এছাড়া শান্তিচুক্তির বর্ষপূর্তি উপলক্ষে রাঙামাটি রিজিয়ন ও সদর জোনের আয়োজনে কাপ্তাই হ্রদে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।