পাহাড় থেকে পাথর উত্তোলন বন্ধে পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান

507

DSC_0102

রুমা সংবাদদাতা , ২৯ জানুয়ারি ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি :  পাহাড়ি এলাকার সকল প্রাকৃতিক ঝিরি-ঝরনা থেকে যে কোনো ধরণের পাথর উত্তোলন বন্ধ করাসহ ও পাহাড় কাটা বন্ধে কর্তৃপক্ষকে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছে জনপ্রতিনিধিরা। কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অননুমোদিতভাবে কোনো প্রাকৃতিক সম্পদ আহরণ, অবৈধভাবে পাহাড় কাটা ও পাথর উত্তোলণের প্রমাণ পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছে রুমার জনপ্রতিনিধিরা। এলাকার উন্নয়ন বিভিন্ন কাজে সংশ্লিষ্ট সংস্থা ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ঝিরি-ঝরনা থেকে অবৈধ পাথর উত্তোলন করে কাজে লাগাচ্ছে এমন অভিযোগ উঠার এই হুশিয়ারি দেয় তারা। এ্ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকার বনবিভাগগুলোকেও সোচ্চার থাকার আহ্বান জানান তারা।

রুমা উপজেলার মাসিক আইন শঙ্খলা সভায় এই আহ্বান জানানো হয়। বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা চেয়ারম্যান অংথোয়াইচিং মারমার সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) কাজী মোহাম্মদ চাহেল তস্তুরীর সঞ্চলানায় অনুষ্ঠিত এ সভায় স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও প্রকৌশল বিভাগসহ ১৫টি বিভাগের বিভাগীয় কার্যক্রম নিয়ে পর্যাআলোচনা করা হয়। এর আগে রুমা থানা পুলিশ বিনোদনের জন্য উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে একটি এলসিডি টিভি এসআই আনোয়ার হোসেনের হাতে তুলে দেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জিংএংময় বম, ভাইস চেয়ারম্যান জিংসমলিয়ান বম, উপজেলা প্রকৌশলী কমল কান্তি পাল, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডা: রুবেল, পাইন্দু ইউপি চেয়ারম্যান ক্যসাপ্রু মারমা, রেমাক্রী প্রাংসা ইউপি চেয়ারম্যান ইউজিন ত্রিপুরা, গালেঙ্গ্যা ইউপি শৈউসাই মারমা, সমবায় কর্মকর্তা এ,এইচ এম নুরুল কবির, সমাজ সেবা কর্মকর্তা মো; আব্দুছ ছালাম, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা পুলুপ্রু মারমা, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ বেলাল হোসেইন, হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুল হক, আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন চৌধুরী, বিআরডিবি কর্মকর্তা মো: গোলাম মাওলা, থানার এসআই মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, কৃষি উদ্ভিদ উন্নয়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইউসুফ ও আইটিসি টেকনিশিয়ান বিকাশ চৌধুরী প্রমুখ।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান