প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ করে ইউপিডিএফ নেতা ‘মিঠুন চাকমা’র ব্যাখ্যা

421
গত ১৩ নভেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন ইউপিডিএফ নেতা মিঠুন চাকমা। ছবি- শামীমুল আহসান

গত ১৩ নভেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন ইউপিডিএফ নেতা মিঠুন চাকমা। ছবি- শামীমুল আহসান

ঢাকা ব্যুরো অফিস,  ৭ ডিসেম্বর  ২০১৫, দৈনিক রাঙামাটি : আপনার পত্রিকায় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ে এবং আমাদের সংগঠন বিষয়ে খবর প্রকাশ করার জন্য আপনাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। গত ১৩ নভেম্বর ‘দৈনিক রাঙামাটি পত্রিকার- অনলাইন ভার্সনে’র মাধ্যমে আমাদের খবর প্রচার করার জন্য আন্তরিক কৃতজ্ঞত্ াজানাচ্ছি।

তবে খবরের একটি অংশে ‘… সেনাবাহিনীর সমালোচনা করে বক্তব্য দেন ইউপিডিএফ নেতা মিথুন চাকমা’ এই বাক্যাংশটি ব্যবহার করা হয়। বক্তব্যের  অন্যান্য অংশ বিষয়ে আমার কোনো ভিন্নমত নেই। তবে বাক্যাংশে আমার নাম মিথুন চাকমা লেখা হলেও আমার নামের বানান হলো ‘মিঠুন চাকমা’।

আমার নামে উদ্ধৃত করা বাক্যাংশে ‘সেনাবাহিনীর সমালোচনা’ করে কথা বলার কথা বলা  হলেও মূলত, আমি প্রেসক্লাবে গত ১৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত উক্ত সমাবেশে পার্বত্য চট্টগ্রামে সেনা নির্যাতন ও দমনপীড়নের বিষয়ে কথা বলেছি। এছাড়া এই দমনপীড়ন চালানো হয় অগণতান্ত্রিক ও অসাংবিধানিকভাবে এই কথা বলার চেষ্টা করেছি।

আমি আমার বক্তব্যে মূলত, পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রেক্ষিতকে বিবেচনা করে সেনাশাসনের ও সেনা নির্যাতনের বিষয়ে  কথা বলেছি, পুরো দেশের প্রেক্ষাপটে সেনাবাহিনীর সমালোচনা না করে আমি আমার বক্তব্যে বরং দেশের গণতান্ত্রিক দলসমূহের অগণতান্ত্রিক-অসাংবিধানিক ও জোরজবরদস্তিমুলকভাবে শাসনকার্য পরিচালনার তীব্র সমালোচনা করার চেষ্টা করেছি।

তবে তারপরেও আপনার সংবাদে মূল বক্তব্য তুলে আনার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান

গত ১৩ নভেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন ইউপিডিএফ নেতা মিঠুন চাকমা। ছবি- শামীমুল আহসান