প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাংবাদিক ফারুক

299

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥
কাউখালীর সাংবাদিক ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের প্রতিবাদ জানিয়েছেন তিনি। দৈনিক রাঙামাটিতে পাঠানো এক বিবৃতিতে ফারুক বলেন, আমার সুনামে ঈর্শান্বিত হয়ে একটি মহল য়ড়যন্ত্র করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারণা চালিয়ে আমার সুনাম ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করছেন, যা সম্পূর্ণ অনভিপ্রেত ও অনাকাক্সক্ষীত।

বিবৃতিতে ফারুক বলেন, ‘কয়েক দিন আগে কাউখালী উপজেলার জনৈক ফরিদ খন্দকার (বরখাস্তকৃত আনসার সদস্য) রাঙামাটি প্রেসক্লাবে একটি সংবাদিক সম্মেলন করে। সম্মেলনে তিনি (ফরিদ খন্দকার) কিছুদিন পূর্বে তার বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানান এবং ব্যাখ্যা প্রদান করেন। তার লিখিত বক্তব্যে ‘আমি সাংবাদিক ফারুকের বিষয়ে এক বর্ণ বক্তব্যও ছিল না। তার পরও কোনো কোনো গণমাধ্যমে আমাকে জড়িয়ে অনাকাঙ্খীত সংবাদ পরিবেশন করা হয়। যার সাথে বাস্তবতার কোনো মিল নেই’।

ফারুক জানান, ‘সংবাদ প্রকাশের পর- পরস্পর খবর নিয়ে আমি জানতে পারি যে, লিখিত বক্তব্যের বাইরে ফরিদ খন্দকার আমাকে জড়িয়ে বিষোদগার করেন। অথচ তার বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের সাথে আমার কোনো সশ্লিষ্টতা নেই, ওই সংবাদের বিষয়ে আমি কিছুই জানতাম না। ফরিদ খন্দকার এবং তার পরিবারের বিরুদ্ধে এলাকার লোকজন বিভিন্ন দফতর ও সংস্থায় নানা অভিযোগ করলেও আমি সঙ্গত কারণে এসব অভিযোগের বিষয়ে কোনো আগ্রহ দেখাইনি।

তারপরও তিনি যদি সাংবাদিক সম্মেলনে সত্যিই মৌখিকভাবে এ ধরণের মিথ্যাচার করে থাকেন, তা বেআইনী এবং মানহানিকর। ফরিদ খন্দকার সত্যিই যদি এমন বেআইনী তথ্য উপস্থাপন করে থাকেন, তাকে আমি বিবৃতির মাধ্যমে তার ভুল সংশোধন করার আহ্বান জানাচ্ছি। অন্যথায় আমি আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হবো’।

ফারুক আরো বলেন, ‘সাংবাদিক সম্মেলনের বরাতে প্রচারিত কোনো কোনো সংবাদে আমাকে জড়িয়ে যে বানোয়াট তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে- আমি তার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। কারণ এমন তথ্যে আমার মান সম্মান ক্ষুন্ন হয়েছে। আমার মনে করার যৌক্তিক কারণ রয়েছে যে, এমন সংবাদ উদ্দেশ্য প্রণোদিত’।