প্রেমিকের ফাঁদে প্রেমিকার জীবন দানঃ হত্যাকারীকে খুঁজছে পুলিশ,

417

|| রাজস্থলী প্রতিনিধি ||

রাঙামাটি পার্বত্য উপজেলার ৩নং বাঙালহালিয়া ইউনিয়নের ধলিয়া মুসলিম পাড়া নুরু আহম্মদের মেয়ে রিজিয়া বেগম (রুপা আক্তার) ১৯ প্রেমের কারণে শেষ পর্যন্ত নৃশংসভাবে নিজের জীবন দিতে হলো। আর প্রেমিক বখাটে বাঙালহালিয়ার ডাক বাংলা বিহার পাড়ার রকি প্রকাশ (রক্যের) ছেলে কাজলের সাথে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু কাজলের পরিবারের চরিত্র ভাল না থাকায় রিজিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে সম্পর্ক মেনে নেয়নি।

নিহত রিজিয়ার বাবার সাথে আলাপ কালে তিনি বলেন, ৬/৭ মাস পূর্বে রাঙুনিয়ার বড়খোলা পাড়ার হায়দার সাথে রুপার বিয়ে হয়। বিয়ের ৪ মাসের মাথায় রিজিয়া গর্ববতী হয়ে পড়ে। গত ৭ আগষ্ট রিজিয়া বেড়ানোর উউদ্দেশ্যে বাহির হলে খবর পেয়ে যায় প্রেমিক কাজল এক পর্যায়ে রিজিয়াকে ফোনের মাধ্যমে ফোন করে বিভিন্ন রকম কথা বলে হুমকি দেয়। রুপা নিরুপায় হয়ে কাজলের সাথে দেখা করে। কিন্তু জীবন দিয়ে শেষ মেষ পৃথিবী থেকে চীর বিদায় নিয়ে রুপা নির্মমভাবে হত্যা করে তার প্রেমিক কাজল।

রুপার বাবা আরো জানান, কাজল চরিত্রহীন বকাটে ও ইয়াবা সেবনকারী। তার হাতে কতো মেয়ে এ পর্যন্ত লাঞ্চিত ও নির্যাতিত হয়েছে। সূত্রে জানা যায়, কল্পনা করতে পারেনি তার পূর্বের পরিচিত ভালবাসার মানুষটির হাতে এ দুনিয়া থেকে চীর বিদায় নিতে হবে রিজিয়া বেগম ( রুপা আক্তার কে) নির্মমহত্যা কান্ডের বিচার চেয়ে বান্দরবান সদর থানায় মামলা করেন নিহত রুপার বাবা নুরুল ইসলাম ও স্বামী হায়দার আলী। মামলা নং ৮/৮/২০২১ ধারা ৩০২/২০১/৩৪ পেনেল কোর্ট ১৮৬০ রুজু করা হয়। বকাটে মামলার আসামী কাজল হোসেন ও তার পিতা রকি, প্রকাশ রক্যা পলাতক থাকায় পুলিশ তাদের খুঁছছে। এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী বান্দরবান সদর থানার এ এস আই গোবিন্দের সাথে আলাপকালে তিনি জানান, আসামীদের ধরার তৎপরতা রয়েছে।