বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের উদ্যোগে ‘‘নিরাপদ ও নারীবান্ধব ঢাকা মহানগর’’ শীর্ষক মতবিনিময় সভার অনুষ্ঠিত।

482

স্টাফ রিপোর্ট- ১৩ জুলাই ২০১৭, দৈনিক রাঙামাটি (প্রেস বিজ্ঞপ্তি):  আজ সকাল ১১টায় সিরডাপ মিলানায়তনে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের উদ্যোগে ‘‘ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে নির্বাচিত সম্মানিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের সাথে নিরাপদ ও নারীবান্ধব ঢাকা মহানগর’’ শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম। মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সম্মানিত মেয়র সাঈদ খোকনের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও অনিবার্য কারণবশত তিনি উপস্থিত থাকতে পারেন নাই। সভায় সভপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আয়শা খানম। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু। সভায় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের বক্তব্য উপস্থাপন করেন সংগঠনের সহ-সভাপতি রেখা চৌধুরী।

ঢাকা সিটি কর্পরেশনের বিভিন্ন এলাকায়, বিভিন্ন ক্ষেত্রে নারী বান্ধব পরিবেশের অভাবে স্বাচ্ছন্দ্যে নারীর বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম বাধাগ্রস্থ হচেছ, যা  নারীর দৈনন্দিন নাগরিক জীবনে বিবিধ বাধা সৃষ্টি করছে। নারীরা নিরাপত্তাহীনতার সম্মুখিন হচ্ছে। কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে ঢাকা মহানগরকে নিরাপদ ও নরাীবান্ধব করার লক্ষে ৩১টি সুপারিশ করা হয়।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আয়শা খানম বলেন, নারীর ক্ষমতায়ন প্রতিষ্ঠা একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া যার জন্য মহিলা পরিষদ কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন যতটুকু অর্থ বরাদ্দ নারী জনপ্রতিনিধিরা পেয়েছেন তার ভিত্তিতেই কাজ করতে হবে। নির্বাচিত নারী জনপ্রতিনিধিও তার এলাকায় নানা ধরনের নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তিনি আরো বলেন নারী জনপ্রতিনিধিদের নানা ধরনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে। ক্রাইম জোনগুলোতে জনপ্রতিনিধিদের যেতে হবে এবং বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ তার পাশে থাকবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। ঢাকা শহরে বর্জ্য সমস্যা সমাধানের জন্য জনপ্রতিনিেিদর সহযোগিতা প্রয়োজন। একটি সুন্দর ঢাকা শহর গড়তে কাঠামোগত, মানসিক পরিবর্তন এবং সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন বলে তিনি উল্লেখ করেন। সরকার, প্রতিষ্ঠান, নাগরিক, সচেতন ব্যক্তি সকলে মিলে এই ঢাকা শহরকে একটি সুন্দর শহর হিসেবে গড়ে তোলার আশা প্রকাশ করেন তিনি। সব শেষে তিনি বলেন আজকের এই সভা থেকে প্রাপ্ত সুপারিশগুলো স্মারকলিপি আকারে প্রধাণমন্ত্রী বরারবর দেয়া হবে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম বলেন নারীদের জন্য একটি নিরাপদ শহর তৈরি অত্যন্ত জটিল কাজ। ঢাকা শহরে ঘনবসতি, কাঠামোগত সহ নানা ধরনের সমস্যায় ও চ্যালেঞ্জের মধ্যে আমরা আছি। কিন্তু তার পাশাপাশি নারীদের জন্য একটি নিরাপদ শহর প্রয়োজন। তিনি বলেন আমাদের দেশে বিভিন্ন নীতিমালায় নারীদের অধিকার গুরূত্ব নির্ধারিত আছে। সংবিধানে নারী-পুরুষের সমতার কথা আছে। কিন্তু বাস্তবে অনেক প্রতিবন্ধকতা রয়েছে, রয়েছে আমাদের নানা অভিজ্ঞতা। তিনি বলেন সিসি টিভি এর প্রসার পুরা ঢাকায় দরকার। আইনগত কাঠামোতে অনেক দেশের চেয়ে আমরা এগিয়ে আছি। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে বাস্তবে এর প্রয়োগ নেই। নারী জনপ্রতিনিধিরা বলেছেন সংরক্ষিত আসন প্রয়োজন নেই। এই নারী জনপ্রতিনিধিদের আইনি কাঠামোতে আনা দরকার। প্রতিটি  থানায় উচ্চ পদস্থ নারী পুলিশ অফিসার, প্রতিটি ওয়ার্ডে নারী পুলিশ থাকলে তা অনেক ইতিবাচক হবে। সমস্ত পুলিশ ফোর্স যদি নারী অধিকার সম্পর্কে সচেতন হয় বিশেষত নারী পুলিশ অফিসাররা যদি বেশি সচেতন হয় তাহলে তা অনেক বেশি গ্রহণযোগ্য হবে। নারী পুলিশের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে নারীদের প্রটেকশন আরো বৃদ্ধি পাবে। ওয়ার্ডভিত্তিক, বিশেষত পুরা ঢাকা শহরে যেন এলইডি লাইটের ব্যবস্থা করা হয় তিনি সে কখা উল্লেখ করেন। যাতায়াতে নারীরা অনেক সমস্যার সম্মুখিন হয়। তিনি বলেন ঢাকায় পাবলিক টয়লেটের সংখ্যা অনেক কম। এই ক্ষেত্রে নারীরা আরো বড় চ্যলেঞ্জের সম্মুখিন হন। নারীদের শুধু মা বোনই পরিচয় নয় তাদের সবচেয়ে বড় পরিচয় হচ্ছে তারা দেশের নাগরিক এবং তারা রাজনীতিসহ সকলক্ষেত্রে এখন পুরুষের পাশাপাশি অবস্থান করছে। আমাদের পুরো গার্মেন্টস শিল্প নারীদের দ্বারা চলছে। কিন্তু উচ্চ পর্যায়ে  এই সেক্টরে নারীরা নেই।

তাদের অনেক অবদান থাকলেও তা স্বীকৃত নয়। তবে সকলের সহযোগিতায়, আন্তরিকতায় সবাই মিলে একটি নিরাপদ শহর গড়া সম্ভব বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেম মহিলা পরিষদের উপদেষ্টা সেলিনা খালেক, সহ-সভাপতি: ডা. ফওজিয়া মোসলেম, মাখদুমা নর্গিস রতœা, নাহার আহমেদ, হান্নানা বেগম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাখী দাশ পুরকায়স্থ; সহ-সাধারণ সম্পাদক : অ্যাড. মাসুদা রেহানা বেগম। সংগঠন সম্পাদক : উম্মে সালমা বেগম, প্রশিক্ষণ, গবেষণা ও পাঠাগার সম্পাদক : রীনা আহমেদ, রোকেয়া সদন সম্পাদক: নাসরিন মনসুর, আন্তর্জাতিক সম্পাদক : রেখা সাহা, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক : বুলা ওসমান , স্বাস্থ্য সম্পাদক : নূরুল ওয়ারা বেগম, ঢাকা মহানগর শাখার সভাপতি মাহাতাবুন্নেসা, সাধারণ সম্পাদক রেহানা ইয়ুনুস সহ সংগঠনের বিভিন্ন নেত্রী ও সংগঠকবৃন্দ। অনুষ্ঠনটি পরিচালনা করেন বাংলাদেশ মহিল প্রজেক্ট কো অর্ডিনেটর খোদেজা আক্তার নাজমা।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরো প্রধান ।