বাঘাইছড়ি পৌরসভায় মেয়র জমির ও চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নে মিলন চেয়ারম্যান নির্বাচিত

320

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মোঃ জমির হোসেন ও কাপ্তাই উপজেলার ১নং চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মোঃ আকতার হোসেন মিলন নির্বাচিত হয়েছেন।

বাঘাইছড়ি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার প্রতিকের প্রার্থী মোঃ জমির হোসেন পেয়েছেন ৬ হাজার ২শত ৬০ ভোট। আর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের সমর্থনপুষ্ট স্বতন্ত্র প্রার্থী মোবাইল প্রতীক নিয়ে রহমত উল্ল্যাহ খাজা পেয়েছেন ২ হাজার ২শ’ ৭৮ ভোট।

এদিকে, কাপ্তাই উপজেলার ১নং চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মোঃ আকতার হোসেন মিলন পেয়েছেন ৩ হাজার ৪শত ১৫ ভোট। আর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীক নিয়ে বিপ্লব মারমা পেয়েছেন ২ হাজার ৬৬ ভোট। এর আগে রাঙামাটির বাঘাইছড়ি পৌরসভা ও কাপ্তাই চন্দ্রঘোনা ইউপির নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ও আনন্দমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। বুধবার (১৫ জুন) সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়েছে ভোট গ্রহন, চলে একটানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত। বাঘাইছড়ি পৌরসভা ও চন্দ্রঘোনা ইউপির নির্বাচনে প্রথমবারের মতো ইলেক্ট্রনিকভোটিং মেশিনে (ইভিএম) এ ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সকাল থেকে নারী-পুরুষ উভয়ে কেন্দ্রে কেন্দ্রে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট প্রদান করতে দেখা গেছে। তবে প্রথমবারের মতো ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) এর পদ্ধতিতে হওয়ায় ভোট গ্রহন করার ধীর গীতিতে চলে।

এবার বাঘাইছড়ি পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে দুই তরুন প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মোঃ জমির হোসেন এবং স্বতন্দ্র প্রার্থী মোঃ রহমত উল্লাহ খাজা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালে বাঘাইছড়ি পৌরসভা হিসেবে ঘোষনা করা হয়। তবে প্রথম দিকে এই পৌরসভায় নির্বাচন না দিয়ে পৌর প্রশাসক দিয়ে পৌর সভা পরিচালনা করা হয়। ২০১২ সালের দিকে এই পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এবার এই পৌরসভার তৃতীয় পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এদিকে, শিল্প এলাকা হিসাবে পরিচিত রাঙ্গামাটির কাপ্তাই উপজেলাধীন ১নং চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতিতে শান্তিপূর্ণ ও আনন্দমুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। দুই জন চেয়ারম্যান প্রার্থী, ২১ জন সাধারণ সদস্য এবং ১৩ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। এই ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ১শ’ ৬০ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৫ হাজার ৪শ’ ৮৮ জন এবং মহিলা ভোটার ৪ হাজার ৬ শ’ ৭২ জন।

নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের টিকেট নির্বাচন করছেন সাবেক ছাত্রনেতা ও বর্তমান কাপ্তাই উপজেলা আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আক্তার হোসেন মিলন। আর তাঁর একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি আনারস প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান বিপ্লব মারমা অংশ নিয়েছেন এই নির্বাচনে।
কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা তানিয়া আক্তার জানান, এই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৩ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট, ১ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া আচরণবিধীর নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট হিসাবে কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির জাহান প্রচার প্রচারনার দিন হতে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি আরো জানান, অতন্ত সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।