বিলাইছড়িতে সেগুন গাছ বিক্রির দ্বন্দ্বে নিহত ১ আটক ২

101

॥ বিলাইছড়ি প্রতিনিধি ॥

পাহাড়ের সেগুন গাছ বিক্রির দ্বন্দ্ব কেন্দ্র করে মারামারির ঘটনায় ইব্রাহিম (৫৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। রোববার দুপুরে সদর উপজেলাধীন ১নং জীবতলী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের কৌশল্যাঘোনা এলাকায় নিহত ইব্রাহিমের মালিকানাধীন সেগুন বাগানে এই ঘটনা ঘটে। নিহত ইব্রাহীম বিলাইছড়ি উপজেলাধীন কেংড়াছড়ি বাজার এলাকার বাসিন্দা মৃত লাল মোহাম্মদ আকন্দের সন্তান।

ঘটনার পর বিলাইছড়ি থানা পুলিশের সহায়তায় এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মিন্টু মিয়া মন্টু (৫৩) ও গোলাম মোস্তফা (৩৫) নামের দুইজনকে আটক করেছে রাঙামাটির কোতয়ালী থানা পুলিশ। আটকের বিষয়টি কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ কবির হোসেন নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আমরা এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার পর হতে মোঃ বাবুল নামের আরো একজন পালিয়ে গেছে।

বিলাইছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা: সালমান জানান, নিহত ব্যক্তিকে আজ আনুমানিক সাড়ে ১২টার দিকে হাসপাতালে নিয়ে আসলে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। সম্ভবত হাসপাতালে আনার আগে তিনি মারা গেছেন। তার মাথার পিছনে ছোট আঘাতের চিহ্ন ছিল বলেও তিনি সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন।

বিলাইছড়ি থানা সূত্রে জানাগেছে, ইব্রাহিম নিজ বাগান থেকে মিন্টুর নিকট শতাধিক সেগুন গাছ বিক্রি করেছিলো আরো এক বছর আগে। সেই গাছগুলো বুঝিয়ে দেয়ার লক্ষে রোববার দুপুরে মন্টু ও তার আরো তিন সহযোগিকে সাথে নিয়ে নিজ বাগানে যান ইব্রাহিম। এসময় বাগানের একটি সাইট থেকে সিরিয়াল অনুসারে গাছ নির্ধারন করতে থাকেন ইব্রাহিম। কিন্তু ক্রেতা মিন্টু ও তার সহযোগিরা বাগানের বড় বড় গাছগুলো নিতে চাইলে উভয় পক্ষ বাকবিতন্ডায় লিপ্ত হয়ে মারামারিতে লিপ্ত হয়। পরবর্তীতে তাদের শোরগোল চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আহত অবস্থায় ইব্রাহিমকে উদ্ধার করে নিকটস্থ বিলাইছড়ি স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে অভিযুক্ত ১। মিন্টু মিয়া (মন্টু) (৫৫), পিতাঃ মৃত আজিজ, ২। গোলাম মোস্তফা(৩৫), পিতাঃ হাবিবুর রহমানকে পুলিশ আটক করতে পারলেও আরেক ব্যক্তি বাবুল (৩৫) পিতাঃ মৃত হেলালকে ধরতে পারেনি। তারা উভয়েই বিলাইছড়ি উপজেলার কেংড়াছড়ি ইউনিয়নের বাসিন্দা।