মহালছড়ি জনতা বৌদ্ধ বিহারে ২য় কঠিন চীবর দান উদযাপিত

88

॥ মনু মার্মা ॥
বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে মহালছড়ি জনতা বৌদ্ধ বিহারে ২য় শুভ দানোত্তম কঠিন চীবর দান উদযাপন করা হয়েছে। বরকল উপজেলার সুবলং ইউনিয়নের তন্যাছড়ি গ্রামের এই বিহারে রাঙামাটি রাজবন বিহার, যমচুগ বনাশ্রম ভাবনা কেন্দ্র লংগদু, তিনটিলা বন বিহার, সুবলং শ্রাবস্তী বন বিহার, জুরাছড়ি আমতলী ধর্মোদয় বন বিহার, কাট্টলী নীলচন্দ্র ধর্মশক্তি বন বিহার থেকে বিপুল সংখ্যক বৌদ্ধ ভিক্ষু যোগ দেন।

কঠিন চীবর দানানুষ্ঠানে প্রধান ধর্ম আলোচক ছিলেন, রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারের বর্ষীয়ান ভিক্ষু শ্রীমৎ সুমন মহাস্থবির, জুরাছড়ি উপজেলার আমতলী ধর্মোদয় বন বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ যুক্তিবাদ মহাস্থবির, সুবলং শ্রাবস্তী বন বিহারের অধ্যক্ষ সংঘসার মহাস্থবির, যমচুগ বনাশ্রম ভাবনা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ কল্যান জ্যোতি মহাস্থবির, লংগদু তিনটিলা বন বিহারের অধ্যক্ষ ধর্মালোক স্থবির সদ্ধর্ম দেশনা দেন। ধর্মসভায় সভাপতিত্ব করেন মহালছড়ি জনতা বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ ভাবনানন্দ ভিক্ষু।

অনুষ্ঠানে বৌদ্ধমূর্তি দান, সংঘ দান, অষ্ট পরিষ্কার দান, পিন্ডু দান, হাজার প্রদীপ দান, কল্পতরু দান, বটবৃক্ষ উৎসর্গসহ বিভিন্ন দানীয় সামগ্রী দানোৎসর্গ করা হয়। দিনব্যাপী দুই পর্বের অনুষ্ঠানে পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন মহালছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মায়াধন চাকমা। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, গ্রাম প্রধান বীরো রঞ্জন কার্বারী। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, বরকল প্রেসক্লাবের সভাপতি বিহারী চাকমা, জুরাছড়ি আমতলী ধর্মোদয় বন বিহার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কেতন চাকমা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সুনীতি বিকাশ চাকমা।

ধর্ম দেশনায় প্রধানধর্ম আলোচক সুমন মহাস্থবির বলেন, দুঃখমুক্তির পথ অন্বেষণের জন্য সিদ্ধার্থ গৌতম রাজ্য, পুত্র, স্ত্রী সবকিছু ত্যাগ করেছিলেন। মুক্তির পথ না পাওয়া পর্যন্ত তিনি নিজের সংকল্পে অটুট ছিলেন।

বুদ্ধ ধর্মের অন্ধ বিশ্বাস নেই। নিজের জ্ঞানে যাচাই-বাছাই করে প্রতিপালন করার ধর্ম। বুদ্ধ ধর্ম সঠিকভাবে পালন করা গেলে উন্নত থেকে উন্নত, শ্রেষ্ঠ থেকে শ্রেষ্ঠতর জীবন লাভ করা সম্ভব। জ্ঞানী বিজ্ঞ-সম্যকদৃষ্টি সম্পন্ন মানুষেরাই বুদ্ধের ধর্ম-চর্চা করতে পারে।

অনুষ্ঠানে ধর্মীয় সংগীত পরিবেশন করে শিশু শিল্পী আর্য্যমুনি চাকমা, শ্রদ্ধাঞ্জলি পাঠ করেন, তয়া চাকমা। ২য় বারের মত আয়োজিত দানোত্তম কঠিন চীবর দানানুষ্ঠানে রাঙ্গামাটির বরকল, লংগদু, জুরাছড়ি, বিলাইছড়ি, রাঙ্গামাটি সদর, খাগড়াছড়ির দিঘীনালা, বাবুছড়ার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পূর্ণ্যার্থীরা অংশ নেন।