মাদকের মরণ ফাঁদ থেকে বাঁচতে সকলকে সচেতনহতে হবে

569

p..1

 
গোলাম মোস্তফা- স্টাফ রিপোর্টার, ২ জানুয়ারি ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : বর্তমান সময়ে আমাদের সমাজের প্রতিটি স্তরে মাদকের ভয়াবহ প্রবেশ ঘটেছে। যদি আমরা এখনই সচেতন না হই মাদকের এহেন বিস্তার আমাদের কাউকে রেহাই দেবে না। এই সমস্যাকে অন্যতম প্রধান জাতীয় সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করে এখনো নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব, কারণ এদেশের সম্ভাবনাময় যুবসমাজ তথা পুরো জাতিকে বাঁচাতে হবে। মাদকের বিরুদ্ধে দেশের সচেতন জনগণকে এগিয়ে আসতে হবে এবং ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মোস্তফা জামান। মাদক বিরোধী প্রচারনার মাস জানুয়ারী মাসের প্রথমদিন শুক্রবার সকালে রাঙামাটি শহরে আয়োজিত বর্ণাঢ্য র‌্যালী পরবর্তী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মোস্তফা জামান আরো বলেন, আমরা যে বাতাস গ্রহন করছি তা নষ্ট করার অধিকার কারো নেই আইনে তা বলা আছে। কিন্তু আমাদের সমাজে এখন দিন দিন মাদকের বিস্তার বেড়েই চলছে।  আর এই মাদক বাতাসের সাথে মিশে গিয়ে আমাদের সমাজের ছোট-বড় সকলের ক্ষতি করছে। এই মাদকের মরন ফাঁদ থেকে বাঁচতে হলে সমাজের সকল স্থরের মানুষজনকে সজাগ থাকতে হবে। এখন সমাজে দেখা যায় ছোট ছোট বাচ্চারা সিগারেট খাচ্ছে তাদেরকে বুঝাতে হবে এবং তাদেরকে মাদকের ক্ষতিকারক বিষয়গুলো জানাতে হবে তাহলেই মাদকের মরন ফাঁদ থেকে বাঁচা সম্ভব হবে।

তিনি আরো বলেন, প্রতিটি স্কুলের শিক্ষকরা মাদকের ক্ষতিকারক বিষয়গুলো নিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতামূলক ক্লাস নেওয়ার পাশাপাশি মাদকের ক্ষতিকারক দিকগুলো উক্ত ক্লাসে আলোচনা করলে মাদকের কুফলগুলো জেনে শিক্ষার্থীদের মাঝে মাদকের বিরুদ্ধে আত্মসচেতনতা বৃদ্ধি পাবে। মোস্তফা জামান এই ব্যাপারে সমাজের সকল স্তরের সচেতন ব্যক্তিবর্গকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন।
এর আগে “এসো নেশা ছেড়ে কলম ধরি, মাদক মুক্ত সমাজ গড়ি” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সকাল ১০ টায় রাঙামাটি পৌরসভার সামনে থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালীটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন শেষে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আবু সায়েদ এর সভাপতিত্বে এবং মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক আলমগীর হোসেনের সঞ্চলনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, সদর সার্কেল এএসপি চিত্ত রঞ্জন পাল, রাণীদয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাওলানা আবুল কাশেম প্রমুখ। এসময় সভায় বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকগণ উপস্থিত ছিলেন।

পোস্ট- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান।