রাঙামাটিতে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ উদযাপন

510

p..2

মো. নুরুল আমিন, ৯ ডিসেম্বর ২০১৫, দৈনিক রাঙামাটি : সামাজিক অগ্রগতির বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশের সাফল্য আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। এই সাফল্যের পেছনে নারীদের ভূমিকা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। অথচ সেই নারীরাই সমাজে নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। দেশে যে মাত্রায় নারী নির্যাতন ঘটে চলেছে তা আমাদের সকল সাফল্যকেই প্রশ্নবিদ্ধ করে তোলে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (২০১৪) জরিপ অনুসারে, বাংলাদেশে প্রতি ঘন্টায় একজন নারী নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। বাংলাদেশের পরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসাব মতে, দেশের ৮৭ শতাংশ নারীই পারিবারিক নির্যাতনের শিকার। অপর এক জরিপ মতে, এদেশের ৭ শতাংশ নারী নির্যাতনের কারণে আত্মহত্যার চেষ্টা চালান। অথচ নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা রাষ্ট্র ও সমাজের দায়িত।

বুধবার রাঙামাটিতে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী বক্তারা এসব কথা বলেন। ‘নারী নির্যাতান মানববন্ধন প্রতিকারে প্রতিরোধে সোচ্চার হব’ এই শ্লোগান সামনে রেখে জেলা প্রশাসন ও কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সহযোগিতায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এ সময় বক্তারা আরো বলেন, নারী নির্যাতন প্রতিরোধে সবার আগে দরকার নারীর প্রতি পুরুষের দৃষ্টিভঙ্গি ও আচারণের পরিবর্তন, পৃুরুষের সক্রিয় উদ্যোগ। প্রয়োজন পারস্পরিক সহযোগিতা, শ্রদ্ধা ও সহানুভুতির সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করা।

মানববন্ধনে প্রধান অতিথি ছিলেন, রাঙামাটির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মোস্তফা জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন,রাঙামাটি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহিনুর রহমান, রাঙামাটি আলোড়ন নারী সংস্থার সভাপতি নুরজাহান পারুল,রাঙামাটি সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামাল হোসেন, ব্র্যাক প্রতিনিধি সমীর কুন্ডু এবং সংগঠনের সদস্যবৃন্দগণ উপস্থিত ছিলেন।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান