রাঙামাটিতে ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির মানববন্ধন

184

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥
ধর্মের পবিত্রতা রক্ষার জন্য ধর্মেরর নামে সন্ত্রাসের রাজনীতি নিষিদ্ধ করাসহ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যগুলোতে নিরাপত্তায় সিসি ক্যামরার আওতায় নিয়ে আসার দাবী জানিয়েছে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দ বলেন, উগ্র মৌলবাদী গোষ্ঠী ধর্মের নাম দিয়ে দেশে ষড়যন্ত্র করে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। তাই এইসব উগ্র মৌলবাদী গোষ্ঠীকে চিহ্নিত করে দ্রুত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

মঙ্গলবার (৮ ডিসেম্বর) সকালে রাঙামাটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধীতাকারী ও কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের উপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও সমাবেশ থেকে এইসব দাবী জানান বক্তারা।

একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি রাঙামাটি জেলার সভাপতি সুনীল কান্তি দে’র সভাপতিত্বে ও স্নেহাশীষ বড়ুয়া সেন্টুর সঞ্চালনায় মানববন্ধন চলাকালে এসময় বক্তব্য রাখেন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি সহ সভাপতি অমলেন্দু হাওলাদার, সহ সভাপতি ও নারী নেত্রী টুকু তালুকদার, রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি এস এম শামশুল আলম, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক প্রকাশ চাকমা, সাধারণ সম্পাদক সৈকত রঞ্জর চৌধুরী প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে পাকিস্তানি দোসরা এখনও ঘুরে বেড়াচ্ছে। একাত্তরের পরাজিত শক্তিরা সব সময় বাংলাদেশকে পাকিস্তান বা আফগানিস্তান বানানোর চেষ্টায় লিপ্ত। যেকোন মুল্যে স্বাধীনতা বিরোধী সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দাঁড়াতে হবে। এসব অপশক্তি এখনো বাংলাদেশকে পাকিস্তান বানানের স্বপ্ন দেখে তাদের সে স্বপ্ন কখনোই এই দেশে পুরণ হবেনা। বঙ্গবন্ধুর বাংলায় কোনো মৌলবাদী ও উগ্রবাদীর ঠাঁই হবে না। বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য জাতি আর সহ্য করবে না।