রাঙামাটিতে নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে পাঁচ দিনের পিঠা উৎসব শুরু

630

॥ মনু মার্মা ॥
বাহারী রকমের পিঠা, বিভিন্ন ফলের আচার, হাতের তৈরি রংবেরঙের পোষাক এবং হরেক রকম বিলাস
দ্রব্যের নজরকাড়া পশরা সাজিয়ে বসেছেন রাঙামাটির নারী উদ্যোক্তারা। রোববার রাঙামাটি শহরের নিউ মার্কেটে আশিকা হলরুমে এই মেলার শুভসূচনা হয়। মেলা চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত।

রাঙামাটি নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন সংস্থার ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত এই মেলার নাম দেওয়া হয়েছে ‘পিঠা উৎসব ও উদ্যোক্তাদের মিলন মেলা’। নারী উদ্যোক্তারা সকাল থেকেই দোকান সাজালেও বিকালের দিকে কেক কেটে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাঙামাটি নারী উদ্যোক্তা উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি ক্যালি চাকমা।এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক সদস্য ও গালস্ গাইড চট্টগ্রাম অঞ্চলের কমিশনার নিরূপা দেওয়ান, বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতি রাঙামাটির সভাপতি বিপ্লব চাকমা, আলোড়ন নারী সংস্থার নূর জাহান পারুল। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নারী উদ্যোক্তা কুহেলি চাকমা।অনুষ্ঠানে রাঙামাটি শহরের বিভিন্ন পর্যায়ে নারী এবং ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উদ্যোক্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় বক্তারা বলেন, বর্তমানে নারী উদ্যোক্তারা বিভিন্ন প্লাটফর্মে কাজ করে সাবলম্বী হচ্ছে। অবসর সময়ে ঘরে বসে না থেকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে হাতের কাজ শিখছে। এতে ঘরে বসে নারীদের আয়ের একটা সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে প্রযুক্তির ব্যবহার ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিনা খরচে বিজ্খাপন দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টি

হওয়ার কারণে অনলাইন বিজনেজ বেশ জন প্রিয় হচ্ছে। প্রতিদিন যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন উদ্যোক্তো।
উদ্যোক্তারা বলেন, বাংলাদেশের আর্থসামাজিক অবস্থার প্রেক্ষাপটে একজন নারী শুধু চাকরির বাজারে নয় বরং নিজেই উদ্যোক্তা হয়ে আরো নারীদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করছেন। অনলাইন ভিক্তিক বিভিন্ন প্লাটফর্ম ব্যবহার করে বস্ত্র, গয়না, সাংসারিক পণ্য, শিশু খাদ্য ও বিভিন্ন প্রসাধনী বিক্রি করছে তারা। বর্তমানে বিভিন্ন ব্যাংক হতে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী এবং নারী উদ্যোক্তাদের জন্য সহজ ঋণের ব্যবস্থা রয়েছে। এ ঋণ নিয়ে পরিকল্পনার মাধ্যমে সঠিকভাবে সঠিক জায়গায় কাজে লাগানোর আহ্বান জানান তারা।

রাঙামাটিবাসীকে পিঠা উৎসব ও মিলন মেলা পরিদর্শনের আহ্বান জানান উদ্যোক্তারা। আগামী ২ ডিসেম্বর পর্যন্ত মেলাটি প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চলবে বলে জানিয়েছে উদ্যোক্তরা।