রাঙামাটিতে পরিত্যক্ত অবস্থায় লাখ টাকার টিসিবি’র পণ্য উদ্ধার

101

॥ আলমগীর মানিক ॥
চলমান লকডাউন পরিস্থিতিতে নিন্ম আয়ের মানুষজন যখন ন্যায্যমূল্যের দ্রব্যাদির জন্য হাহাকার করছে; তখন রাঙামাটি শহরে লক্ষ টাকার মেয়াদোত্তীর্ণ টিসিবি পণ্য পরিত্যাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করেছে কোতয়ালী থানা পুলিশ। শনিবার সকালে শহরের স্টেডিয়াম এলাকায় অন্ধকারাচ্ছন্ন এলাকায় স্টেডিয়ামের সিড়ির নীচে পরিত্যক্ত অবস্থায় সয়াবিন তেল, ডাল, চিনি, ছোলা ও পেয়াজ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা বিষয়টি কোতয়ালী থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করে।

লক ডাউন পরিস্থিতিতে টিসিবি পণ্যের জন্য স্থানীয় খেটে খাওয়া মানুষ যখন হন্য হয়ে ঘুরলেও মোট বাসিন্দাদের দুই শতাংশের ভাগ্যে টাকা দিয়েও মেলেনা ন্যায্যমূল্যেও টিসিবি পন্য। এমনিতর পরিস্থিতিতে জনগণের জন্য সরকারিভাবে বরাদ্দকৃত ন্যায্যমূল্যের টিসিবি পন্য নির্জণ স্থানে কে-বা কাহারা টিসিবি পন্যগুলো মজুদ করে রেখেছিলো তাদের খুঁেজ বের করার দাবি জানিয়েছে স্থানীয়রা। এনিয়ে ক্ষোভ প্রকাশও করেছেন অনেকেই।

পথচারি মোঃ হানিফ জানিয়েছেন, ভোরের আলো ফোঁটার সাথে সাথেই এখানে টিসিবি লেখা বস্তায় পেয়াজ, চিনি, ডাল, ছৌলা ও সয়াবিন তেল পড়ে থাকতে দেখে অনেকেই সেখান থেকে কিছু কিছু নিয়ে যাচ্ছিলো। কিছুক্ষণের মধ্যে বিষয়টি জানাজানি হলে খেটে খাওয়া লোকজন সেখানে ভিড় জমাতে থাকে। স্টেডিয়াম এলাকার সিড়িঁর নীচ এলাকাটি নির্জন হওয়ায় এখানে রাতের বেলায় টিসিবি পন্যগুলো মজুদ করে পরবর্তীতে সেগুলো অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে দোকানদারদের কাছে বিক্রি করে দেওয়ার লক্ষ্য ছিলো সংশ্লিষ্ট্যদের এমন মন্তব্য করে পথচারি হানিফ জানান,হয়তো সকাল হয়ে যাওয়ায় এবং লোকজন চলে আসায় সংশ্লিষ্ট্যরা পণ্যগুলো ফেলে রেখে চলে যায়।

কোতয়ালী থানা পুলিশ সকাল ১০টার সময় ঘটনাস্থলে গিয়ে টিসিবি পন্যগুলো উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, প্রায় দুইশো বোতল দুই লিটার সয়াবিন তেল, ৬ বস্তা ডাল, ৫ বস্তা চিনি, ২ বস্তা ছোলা ও ৪ বস্তা পেয়াঁজ ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ উদ্ধার করে নিয়ে গেছে।

স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানায়, নির্ধারিত মূল্য ৫শ টাকা হাতে নিয়ে আমরা দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাড়িয়ে থেকেও সংশ্লিষ্ট্য ডিলার থেকে টিসিবি পণ্য নিতে পারিনা।

কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ কবির হোসেন জানিয়েছেন, আমরা স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পন্যগুলো উদ্ধার করেছি। তদন্ত করে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, রাঙামাটি শহরে টিসিবি পন্য বিক্রয়কারি ডিলার জিল্লুল মজুমদার জানিয়েছেন, শনিবার সকালে আমি টিসিবি’র পন্য উদ্ধারের খবরটি পাই। সাথে সাথে আমি গোডাউনে গিয়ে দেখি গেইটের তালা ভাঙ্গা। তিনি জানান, তার গুদাম থেকে উক্ত পন্যগুলো কে-বা কাহারা চুরি করে নিয়ে গেছে। বিষয়টি তিনি কোতয়ালী থানা পুলিশকে অবহিত করেছেন এবং ওসিকে নিয়ে ঘটনাস্থলে গেছেন বলেও জানান। জিল্লুল মজুমদার জানান, গত বৃহস্পতিবার তিনি প্রায় আড়াই লাখ টাকার পন্য চট্টগ্রাম টিসিবি কেন্দ্র থকে ক্রয় করে রাঙামাটিতে এনেছিলেন। আজ শনিবার সেগুলো রাঙামাটি শহরে বিক্রি করার কথা ছিলো।