রাঙামাটিতে বন্যপ্রাণী দিবসের আলোচনা সভা প্রাকৃতিক বনের বিষয়ে গুরুত্বারোপ

400

॥ সোহরাওয়ার্দী সাব্বির ॥

প্রাকৃতিক বন উজাড় হওয়ার ফলে হারিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন ধরনের বন্য প্রাণী-পাখি, কীট-পতঙ্গ। ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ছে জীববৈচিত্র্য। বন্যপ্রাণী রক্ষায় সকল কে এগিয়ে আসতে হবে। সরকারের একার পক্ষে বন ও বন্য প্রাণী রক্ষা করা সম্ভব না, তাই সকলকে এগিয়ে এসে বন ও বন্যপ্রাণীদের রক্ষা করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির জাহান।

বৃহস্পতিবার (৩মার্চ) সকালে রাঙামাটির কাপ্তাই জাতীয় উদ্যানে বিশ্ব বন্যপ্রাণী দিবস উপলক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভা প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

আলোচনা সভায় তিনি আরও বলেন, কিন্তু ক্রমাগত বনাঞ্চল দখল করে বসতিসহ নানা স্থাপনা তৈরি , আগুনে পুড়িয়ে বনাঞ্চলসহ বন্যপ্রানী ধবংস , অপরিকল্পিতভাবে ঝুমচাষ , গাছপাচারসহ নানা কারনে আজ হুমকির মুখে বনাঞ্চল । নিরাপদ আশ্রয় হারিয়ে বিলুপ্তির পথে বিভিন্ন বন্য প্রানী , পাখি ও কীটপতঙ্গ। মানুষের কারনেই ক্রমাগত উজাড় হয়ে যাচ্ছে বন , বন্য প্রানী – পাখিসহ উদ্ভিদের বিভিন্ন প্রজাতি ।

পার্বত্য চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ছালেহ মোঃ শোয়াইব খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় কাপ্তাই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ, চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, ওয়াগ্গা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান চিরঞ্জীত তঞ্চঙ্গ্যা, কাপ্তাই উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোঃ কবির হোসেন প্রমূখ।