রাঙামাটিতে মেয়র পদে ৫জন কাউন্সিলর পদে ৪৩ ও সংরক্ষিত আসনে ২০ প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিলেন

252

॥ ইকবাল হোসেন ॥

আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী রাঙামাটি পৌরসভার আসন্ন নির্বাচনে লড়তে মেয়র পদে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন ৫ প্রার্থী। এদিকে মনোনয়ন জমাদানের শেষ দিনে রোববার বিকেল ৫টা পর্যন্ত পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ৪৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। আর সংরক্ষিত মহিলা আসনের জন্য মনোনয়ন দাখিল করেছেন ২০ জন প্রার্থী।

মেয়র পদে মনোনয়ন জমাদানকারীদের মধ্যে রয়েছেন, ক্ষমতাশীন দল আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রাঙামাটি জেলা যুবলীগের সভাপতি ও বর্তমান মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি’র মেয়র প্রার্থী জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মামুনুর রশীদ, জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক প্রজেশ চাকমা। এ ছাড়া স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী অমর কুমার দে এবং বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টির মেয়র প্রার্থী মো. আব্দুল মান্নান রানা মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।
নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফশিল অনুযায়ী রাঙামাটি পৌরসভার মনোনয়ন জমাদানের শেষ দিনে বিভিন্ন পদের প্রার্থীরা ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে মনোনয়ন জমা দেন। এসময় দলীয় প্রার্থীরা নিজ নিজ দলের নেতা কর্মীদের নিয়ে যেমন হাজির হন তেমনি কাউন্সিলর প্রার্থীরাও তাদের বিপুল সংখ্যক সমর্থক নিয়ে মনোনয়ন জমা দিতে আসেন। তবে এ সময় কোনো ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।
এদিকে জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে অভিযোগপত্র দাখিল করেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ রাঙামাটি জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী মো. ইসমাইল হোসেন। তিনি অভিযোগ পত্রের মাধ্যমে জানান, গত ১৪জানুয়ারী সন্ধ্যায় নির্বাচন অফিস থেকে মনোনয়নপত্র নিয়ে তার বাড়ির উদ্দেশ্যে যাওয়ার সময় শহরের আসামবস্তী এলাকায় একদল দুর্বৃত্ত তার মোটরসাইকেলে হামলা চালায় এবং তাকে কাপ্তাই হ্রদে ফেলে মেরে ফেলার চেষ্টা চালায়। এসময় তার আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। তিনি আরও বলেন, আমরা জনগণের জন্য রাজনীতি করি, শান্তির জন্য রাজনীতি করি। আমি শেষ দিনে মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারিনি; তাই খুব খারাপ লাগছে। এ ঘটনায় তিনি রাঙামাটি কোতয়ালী থানায় ১৭জানুয়ারী একটি সাধারণ ডায়েরী করেন বলে জানান।
রাঙামাটি জেলা রিটার্নি অফিসার কার্যালয়ের সিনিয়র রিটানিং অফিসার মো. শফিকুর রহমান জানান, এই পৌরসভায় এবার ইলেক্ট্রনিক্স ভোটিং মেশিনে ভোট গ্রহণ করা হবে। তিনি জানান, ইভিএম এ ভোট দেওয়া অত্যন্ত সহজ। তারপরও এজন্য আমরা প্রশিক্ষণ এবং জনসচেতনায় কাজ করছি। তিনি আরও বলেন, ইভিএম ভোট অনেক সময় বাঁচায় এবং খরচ কম। কয়েক ঘন্টার মধ্যে নির্বাচনী রেজাল্ট প্রকাশ করা যায়। ব্যালেটের ঝামেলা থাকে না।
প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর রাঙামাটি পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এতে আ’লীগের প্রার্থী আকবর হোসেন চৌধুরী মেয়র নিবার্চিত হয়েছিলেন। নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী, ১৪ ফেব্রুয়ারী রাঙামাটি পৌরসভার ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ১৯ জানুয়ারি বাছাই আর ২৬ জানুয়ারি প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন।