রাঙামাটির বিলাইছড়িতে সেতু নির্মাণ প্রকল্পে দুর্নীতি : জলে গেলো সরকারের ৩২ লক্ষ টাকা

305

অসীম চাকমা- বিলাইছড়ি প্রতিনিধি, ২ জানুয়ারি ২০১৯, দৈনিক রাঙামাটি:

অপরিকল্পিত প্রকল্প গ্রহণ এবং প্রকৌশলির অনভিজ্ঞতার ফলে পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি উপজেলা সদরস্থ বিলাইছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের উত্তর দিকের কাপ্তাই লেকের দুই পাড়ের জনসাধারণের বর্ষাকালে পাড়াপাড়ের সুবিধার জন্য যে সংযোগ সেতু নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয় তা কোনো উপকারে আসেনি, বরং সরকারের রাজস্ব খাতের প্রায় ৩২ লক্ষ টাকা জলেই গেল বলা যায়। সেতুটি নির্মাণের সময় লেকের পানির সর্বোচ্চতা পরিমাপ না করেই সেতু নির্মাণ করায় সেটি বর্ষাকালে প্রায় দুই ফিট পানির নিচে তলিয়ে থাকে। অপর দিকে প্রকল্প গ্রহণের সময় সেতুর দুই পাড়ে সংযোগ সড়ক নির্মাণ পরিকল্পনায় না থাকাতে সেতুটি জনসাধারণের কোনো উপকারে আসবে না।

বিলাইছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম জানান, তিনি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এবং দুই পাড়ের জনগণের চলাচলের সুবিধার্থে সেতটিু নির্মাণের জন্য উপজেলা প্রশসনের কাছে আবেদন জানালে এ সেতুটি নির্মাণ করা হয়।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সুজন কান্তি দাশ জানান, ৩৯ ফুট দৈর্ঘ্য বিশিষ্ট সেতুটির ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে অনুমোদন পায় এবং ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে এর নির্মাণ কাজ সমাপ্ত করা হয়। যার ব্যায় ধরা হয়েছে একত্রিশ লক্ষ আটানব্বই হাজার একশত ঊনত্রিশ টাকা। সেতুটির ম্যাপ করেন প্রাক্তন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম এবং নির্মাণের সময় সাবেক উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা হিসেবে অতিরিক্ত দায়িত্বে ছিলেন কমল বরণ সাহা। স্থানীয়রা মনে করেন, সেতুটি নির্মাণ ত্রæটির কারণে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে দায়ী করা হলেও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তারা এর দায় এড়াতে পারেন না।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরো প্রধান।