রাঙামাটি জেলাপ্রশাসকের সাথে ই-কমার্স ফোরামের সাক্ষাৎ

344

নৈসর্গিক সৌন্দর্যে ঘেরা এই পার্বত্য চট্টগ্রাম পর্যটন শিল্পের পাশাপাশি বেশ অনেকগুলো বিষয়ের কারণেই বিখ্যাত। ডিজিটাল বাংলাদেশের ২১ সনে পাহাড়ের পরতে পরতে এক পরিবর্তন ঘটেছে সচেতনতার। যে সচেতনতা তরুণদের চাকরির পিছনে না ছুটে উৎসাহিত করে আত্মকর্মসংস্থান গড়ে তুলতে।

এর ধারাবাহিকতায় পার্বত্য চট্টগ্রাম এর উদ্যোক্তাদের উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও অনলাইন মার্কেট সৃষ্টির লক্ষে গঠিত রাঙামাটি ই-কমার্স ফোরাম৷ যার ফেসবুক গ্রুপের বর্তমান সদস্য সংখ্যা ৩৭০০০ হাজার। এসব সদস্যদের অধিকাংশই কেউ ক্রেতা এবং কেউ বিক্রেতা। পাহাড়ের উদ্যোক্তারা এই ফোরামের মাধ্যমে বিনামূল্যে সুযোগ পাচ্ছেন তাদের পণ্য প্রদর্শনীতে এবং এর থেকে একশ জনের অধিক উদ্যোক্তা মাসে গড়ে শুধুমাত্র এই ফেসবুক গ্রুপেই বিক্রি করছেন ১৫০০০ হাজার টাকা পর্যন্ত । ইতিমধ্যে এই গ্রুপে বিক্রয় একলাখ টাকা ছাড়িয়েছে এমন উদ্যোক্তা সংখ্যা ১৫ জন। শুধুমাত্র ক্রয় বিক্রয় নয় এই ফোরামের মাধমে প্রতি মাসেই আয়োজন করা হয় উদ্যোক্তা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ এর, যার মাধ্যমে নব উদ্যোক্তারা প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেকে সম্মৃদ্ধ করছেন। রাঙামাটি ই-কমার্স ফোরামের এই অগ্রযাত্রা ও সাফল্যগাথা এবং এই ফোরামের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে, রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান সহিত একটি প্রতিনিধি দল সাক্ষাৎ করেন।

সাক্ষাৎকালে জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান বলেন ” ফেসবুকের মাধ্যমে এই গ্রুপের কার্যক্রম খেয়াল করেছি, পার্বত্য অঞ্চলের উদ্যোক্তা উন্নয়নের জন্য সব রকম সহযোগিতা জেলা প্রশাসন কর্তৃক রইবে এবং রাঙামাটি ই-কমার্স ফোরামের সাফল্য করছি “। এই সময় প্রতিনিধি দলের প্রধান ও রেফ এর প্রতিষ্ঠাতা এডমিন সানজিদা এলি জেলা প্রশাসককে এই ফোরামের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা অবহিত করেন এবং উদ্যোক্তাদের উন্নয়নে বিভিন্ন বিষয়ে সহযোগিতা কামনা করেন। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন রেফ এডমিন প্যানেলের মডারেটর সুবর্ণা তুংকা, মরিয়ম আক্তার, সিলভি ইসলাম, লাবণ্য চাকমা, জান্নাতুন নূর, বোধিয়া চাকমা, মা শোয়ে খ্যা, তিতলি নন্দী সহ অন্যান্যরা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি