রাঙামাটি থেকে আরাকান আর্মি নেতা আটক ৪দিনের রিমান্ড

309

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাঙামাটিতে আটক মায়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আরাকান আর্মি নেতা ড. রেনিন সোয়ের অন্যতম সহযোগী মং অং থান নামের  আরেক আরাকান নাগরিককে আটক করেছে রাঙামাটি কোতয়ালী পুলিশ। শনিবার রাতে শহরের বনরূপাস্থ একটি রেষ্টুরেন্ট থেকে তাকে আটক করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে ভিন্ন নামের দুইটি জাতীয় পরিচয় পত্রসহ আরাকান আর্মির বিভিন্ন প্রকার কাগজপত্র উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত এই আরাকান আর্মি নেতাকে গোয়েন্দা নজরদারির মাধ্যমে চিহ্নিত করে পুলিশ আটক করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন রাঙামাটির ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোঃ শহিদ উল্লাহ। তিনি জানান, আটককৃত সন্দেহভাজন এই আরাকান আর্মির নেতার বিরুদ্ধে বিদেশী নাগরিক অনুপ্রবেশ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। রোববার দুপুরে রাঙামাটির আদালতে তাকে হাজির করে পুলিশ ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়েছে। রাঙামাটির জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট সাবরিনা আলীর আদালত চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে পুলিশের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, আটককৃত আরাকান সদস্যের কাছ থেকে আরাকান আর্মির বিভিন্ন ডকুমেন্ট ও কয়েকটি নাগরিকত্ব আইডিসহ আর্ন্তজাতিক মানের ভিসা কার্ড পাওয়া গেছে। সূত্রটি জানায়, মূলত বাংলাদেশের কক্সবাজার জেলায় বসবাসকারী আরাকান আর্মির এই নেতা ছদ্মনাম ব্যবহার করে শরনার্থী বিষয়ক কার্ড সংগ্রহ করে সেটি নিয়েই মূলত বাংলাদেশে বসবাস করে আরাকান আর্মির কাজ চালিয়ে যেতেন। জানাগেছে, বিগত ২০০৮ সালে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব আইডি কার্ড সংগ্রহ করেন মায়ানমারের এই নাগরিক। হোনি নাম ব্যবহার করে তিনি বাংলাদেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করেন। এছাড়াও আটকের পর তার কাছ থেকে আরাকান আর্মির বিভিন্ন ডকুমেন্ট ও আরাকান আর্মির পোশাক পরিহিত বিভিন্ন ছবিও পাওয়াগেছে যাতে ষ্পষ্টভাবেই বুঝা যাচ্ছে যে, উক্ত ব্যক্তি মায়ানমারের নাগরিক ও আরাকান আর্মির প্রভাবশালী নেতা।

রাঙামাটি পুলিশ বিভাগের উদ্বর্তন একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, রাঙামাটির কারাগারে আটক মায়ানমারের নাগরিক ড. রেনিন সো’ এর সাথে বেশ কয়েকবার সাক্ষাত করতে রাঙামাটিতে এসে এবং অর্থ সহায়তা করেছিলো মং অং থান। তার গতিবিধি সন্দেহজনক হলে পুলিশের গোয়েন্দা সংস্থা তার উপর নজরদারি করতে থাকে। এক পর্যায়ে পুলিশ জানতে পারে যে, উক্ত মং অং থান একজন মায়ানমারের নাগরিক এবং আরাকান আর্মির সাথে তার যোগাযোগ রয়েছে। এই তথ্য নিশ্চিত হওয়ার পরপরই পুলিশ শনিবার রাতে রাঙামাটি শহরের বনরূপাস্থ একটি রেষ্টুরেন্ট থেকে মং অং থানকে আটক করে।  এদিকে একটি দায়িত্বশীল সূত্র থেকে জানাগেছে, রাঙামাটি শহর থেকে আটককৃত মং অং থান মূলত রাঙামাটির রাজস্থলীর লোক। সে রাজস্থলীতে মাঝে মাঝে প্রবেশ করে কয়েকদিন অবস্থান করে আবারো চলে যায়। এছাড়া উক্ত ব্যক্তি কক্সবাজারে বসবাস করে এবং সেখানেই একটি মেয়েকে বিয়ে করে।