রাঙামাটি পৌর এলাকায় তৃতীয় ধাপে টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু

188

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

দেশে চলমান দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিতে খেটে খাওয়া মানুষের দুঃখ দূর্দশা লাগবে সরকার রেশন কার্ডের মাধ্যমে সাশ্রয়ী মূল্যে টিসিবির পণ্য বিক্রয়ের উদ্যোগ নিয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় তৃতীয় ধাপে রাঙামাটি পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডে টিসিবি পণ্য বিক্রয়ের মাধ্যমে পৌর এলাকায় এ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে। পৌর এলাকার ১৫ হাজার জনসাধারণ রেশন কার্ডের মাধ্যমে টিসিবির পণ্য ক্রয়ের সুযোগ পাবেন।

সোমবার সকালে রাঙামাটি পৌরসভা প্রাঙ্গণে কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সাবেক প্যানেল মেয়র ও ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. জামাল উদ্দীন।

তৃতীয় ধাপে ৭নং ওয়ার্ডের ৫টি স্থানে রেশন কার্ডের মাধ্যমে টিসিবির পণ্য বিক্রয় করা হয়। ১টি রেশন কার্ডের বিপরীতে (২ লিটার সয়াবিন তেল, ২ কেজি মুশুর ডাল ও ১ কেজি চিনি) চারশত পাঁচ টাকায় বিক্রয় করা হচ্ছে। ৭নং ওয়ার্ডের মোট ২হাজার ৬’শ ৪৫টি রেশন কার্ডের মধ্যে- কাঁঠালতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫৯৩, ফরেস্ট অফিস সংলগ্ন এলাকায় ৬৯৫, কাঁঠালতলী গোডাউন এ্যলাকায়- ৫৪০, পৌরসভা কার্যালয় মাঠে- ৪৩৪, শান্তিনগর মসজিদের পাশে- ৪৮৩ জনের মাঝে টিসিবির পণ্য বিক্রয় করা হয়। সকাল থেকেই পণ্য ক্রয়ের জন্য রেশন কার্ড নিয়ে উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সকলকে লাইনে দাঁড়িয়ে সুশৃঙ্খলভাবে পণ্য ক্রয় করতে দেখা যায়।

এসময় পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অঞ্জন কুমার দাশ ৭নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন স্থানে টিসিবির পণ্য বিক্রয় কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।

এবিষয়ে মো. জামাল উদ্দীন নি¤œ আয়ের খেটে খাওয়া মানুষদের মাঝে রেশন কার্ডের মাধ্যমে সাশ্রয়ী মূল্যে টিসিবি পণ্য বিক্রয়ের উদ্যোগ গ্রহণ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন- আজ ৭নং ওয়ার্ডের ৫টি স্থান থেকে মোট ২হাজার ৬’শ ৪৫টি পরিবারের কাছে পণ্য বিক্রয় করা হচ্ছে। আগামীকাল থেকে অন্যান্য ওয়ার্ডে পণ্য বিক্রয় কার্যক্রম শুরু হবে। ০৫ জুলাই ১ ও ২নং ওয়ার্ডে, ৬ জুলাই ৩ ও ৪নং ওয়ার্ডে, ০৭ জুলাই ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে এবং ০৮ জুলাই ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডে পণ্য বিক্রয় করা হবে।