রাঙামাটি বিএনপি’র উদ্যোগে বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন

515
OLYMPUS DIGITAL CAMERA
॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

৭ই নভেম্বর ঘিরে রাঙামাটিতে বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন করেছে জেলা বিএনপি।

সোমবার বিকেলে জেলা বিএনপি’র দলীয় কার্যালয়ে দিবসটি উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

জেলা বিএনপি’র সভাপতি হাজি মো.শাহ আলমের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক দীপেন তালুকদার’র সঞ্চালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল মান্নান, জেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট সাইফুল ইসলাম পনির, সদর থানা বিএনপি’র সভাপতি এডভোকেট মামুনুর রশীদ মামুন, পৌর বিএনপি’র সভাপতি এসএম শফিউল আজম, জেলা যুব দলের সভাপতি সাইফুল ইসলাম শাকিল, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইলিয়াস, জেলা ছাত্র দলের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ৭ নভেম্বরের বিপ্লব বাঙালি জাতির চেতনার অংশ। এই দিবসটি না আসলে বাংলাদেশ তাবেদার রাষ্ট্রে পরিণত হতো। এই দিন জনতা আর সৈনিকের মধ্যে যে সংহতির অনন্য নজির স্থাপন হয়েছিল তা বাংলাদেশের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।

জাতিকে ইতিহাস বিস্মৃত করার জন্য আওয়ামী সরকার দিবসটি পালন থেকে জাতিকে বিরত রাখার চেষ্টা করছে। তারা বলেন, এই বিপ্লবের ফসল হিসেবেই বাংলাদেশ একদলীয় শাসনের রাহুগ্রাস থেকে মুক্ত হয়েছিল। পরে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বাংলাদেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রবর্তন করেন। গণতন্ত্রের সেই সিড় বেয়েই আজকে বাংলাদেশের মানুষ গণতন্ত্রের কথা বলতে পারছে।কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্যি যে, গণতন্ত্রের বুলি কপচিয়ে আওয়ামী লীগ আজ আবার বাকশালি কায়দায় দেশ চালানোর চেষ্টা করছে।

বক্তরা বলেন, বর্তমান সরকার অবৈধ ভাবে ক্ষমতার আসনে বসে এখন নিজেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। নাসিরনগর ঘটনা তারই প্রমাণ। বক্তারা আরও বলেন, সরকার দলের সমর্থকরা এ হামলার সাথে জড়িত। মানুষ সবকিছু বুঝে কিন্তু ভয়ে মুখ খুলতে পারছে না। সরকার নিজেকে স্বচ্ছ দেখানোর জন্য কয়েকজন নেতা-কর্মীকে বহিষ্কার করে। কিন্তু ঘটনার সূত্রপাত তারা ঘটায়।

বক্তরা এসময় জানান, অবৈধ ভাবে আর বেশিদিন এভাবে ক্ষমতা ধরে রাখা যাবে না। এ সরকারের পতন অবশ্যস্বম্ভাবী বলে বক্তারা হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন।