রাঙামাটি হোটেলে নারী হত্যা, সিসি ক্যামেরার আলামত নষ্ট : মূল আসামি পালাতক

316

kilar  ...

স্টাফ রিপোর্টার, ১৬ মার্চ ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : রাঙামাটি শহরের আবাসিক হোটেল হিল সিটিতে অজ্ঞাত নারীকে হত্যার ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকার অপরাধে এ পর্যন্ত দুই আসামীকে গ্রেফতার করেছে রাঙামাটির কোতয়ালী থানা পুলিশ। ঘটনার দিন এবং মঙ্গলবার রাতে ম্যানেজার সেলিম ও হত্যায় জড়িত নয়নকে আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রশিদ।

গত ১২ই মার্চ হোটেল হিল সিটির পাসের দোকানের নীচ থেকে অজ্ঞাতনামা এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছিল পুলিশ। এসময় হোটেলের ম্যানেজারকে আটক করে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায় তার হোটেলের ১২০ নাম্বার রুমের মধ্যেই উক্ত নারীকে হত্যা করা হয়েছে। পরে তাকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদের তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ চট্টগ্রামের পটিয়া থেকে হত্যা ঘটনায় সরাসরি সম্পৃক্ত থাকায় যুবক নয়নকে গ্রেফতার করা হয়।

নয়ন পুলিশের কাছে জানিয়েছে যে, তার অপর এক বন্ধু মেয়েটিকে হোটেল হিল সিটিতে এনে হত্যা করেছে। মূল হত্যাকারিকে পুলিশ এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি। কোতয়ালী থানার অফিসার ইনজার্চ মোহাম্মদ রশিদ জানিয়েছেন, আসামীদের গ্রেফতারের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। অচিরেই ঘটনার মূল আসামীকে গ্রেফতারের মাধ্যমে ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটন হবে বলেও জানান ওসি।

এদিকে হত্যাকান্ডের দিন সারাদিন সিসিটিভি চালু থাকলেও লাশ লুকানোর সময় ক্যামেরাটি বন্ধ করে রাখা হয় অথবা এর আলামত নষ্ট করে ফেলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন, সিসিটিভি সিষ্টেম ইঞ্জিনিয়ার মো. আব্দুস সেলিম।

পুলিশের একটি সূত্র থেকে জানাগেছে, হত্যার দিন বেলা এগারোটার সময় চট্টগ্রাম থেকে অজ্ঞাতনামা তরুনীকে নিয়ে রাঙামাটি আসে শহরের জনৈক ব্যবসায়ির একমাত্র ছেলে। এসময় তার বন্ধু (বর্তমানে আটককৃত) নয়নকে সাথে নিয়ে একই সাথে তিনজন থাকার জন্য তারা ওই হোটেলে দুটি রুম ভাড়া নেয়। পরে কোনো এক সময় তারা মেয়েটিকে হত্যা করে।

রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল সূত্রে জানাগেছে, ময়না তদন্তে মেয়েটিকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রমান মিলেছে।

সম্পাদনা- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান