রাঙ্গামাটি বিএনপির বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী রবির ওপর সন্ত্রাসী হামলা

373

timthumb.php

স্টাফ রিপোর্টার, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৫, দৈনিক রাঙামাটি : রাঙ্গামাটি পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী রবিউল আলম রবির ওপর হামলা করেছে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা। গতকাল সোমবার রাতে শেষ মুহুর্তের প্রচারণাকালে শহরের আসামবস্তির নারকেল বাগান নামক জায়গায় ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় আগামীকাল বুধবারের এ পৌরসভার সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়ে শংকা প্রকাশ করেছেন সন্ত্রাসী হামলার শিকার মেয়র প্রার্থী রবিউল আলম রবি। তিনি অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানে রাঙ্গামাটিতে সেনা মোতায়েনের দাবি জানান। এ ঘটনার পর সুষ্ঠু ভোট নিয়ে জনমনে দেখা দিয়েছে উদ্রেক।

রবিউল আলম বলেন, রাত প্রায় সাড়ে ৯টার দিকে ওই এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণাকালে ৫/৬ জনের একদল অজ্ঞাত দুর্বৃত্ত হঠাৎ তার গণসংযোগ গতিরোধ করে তার ওপর অতর্কিত হামলার চেষ্টা চালায়। কিন্তু তার কর্মীদের প্রতিরোধের মুখে অন্ধকারে গা ঢাকা দেয় দুর্বৃত্তরা। অল্পক্ষণ পরেই তাকে লক্ষ্য করে অদৃশ্য জায়গা থেকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। এতে তার পায়ে, বুকে ও পিঠে আঘাতপ্রাপ্ত হন বলে জানান হামলার শিকার এ মেয়র প্রার্থী। তিনি বলেন, সেখান থেকে তাৎক্ষণিক রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতাল নিয়ে ভর্তি করানো হয় তাকে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামি করে রাঙ্গামাটি কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা করেছেন রবিউল আলম রবি। কোতোয়ালি থানা পিেুলশর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবদুর রশিদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার ব্যাপারে পুলিশি তদন্ত শুরু হয়েছে। দোষীদের চিহ্নিত করে তাদের ধরতে পুলিশি অভিযান চলছে। এছাড়াও রিটানিং অফিসারের নিকট ঘটনাটির ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে জানান মেয়র প্রার্থী রবিউল আলম রবি। তিনি নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ ভোট গ্রহণে সর্বোচ্চ পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানান।

এদিকে ঘটনার পর আজ মঙ্গলবার সকালে আহত মেয়র প্রার্থী রবিউল আলমকে দেখতে রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতাল গেছেন জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি দীপংকর তালুকদার, আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী আকবর হোসেন চৌধুরী ও স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ডা. গঙ্গা মানিক চাকমা।

মেয়র প্রার্থী রবিউল আলম রবির ওপর হামলার অভিযোগের বিষয়টি স্বীকার রিটানিং অফিসার মো. মোস্তফা জামান বলেন, সুষ্ঠু ভোটগ্রহণে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। কেউ অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা চালালে তাদেরকে কঠোর হস্তে দমন করা হবে। ইতিমধ্যে গোটা শহরে র্যাব, বিজিবি, পুলিশসহ অতিরিক্ত নিরাপত্তা বাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য এ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে সর্বশেষ প্রতিদ্বন্ধিতায় রয়েছেন মোট পাঁচ প্রার্থী। তারা হলেন আওয়ামী লীগের আকবর হোসেন চৌধুরী (নৌকা), বিএনপির সাইফুল ইসলাম চৌধুরী ভূট্টো (ধানের শীষ), বিএনপির বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী রবিউল আলম রবি (কম্পিউটার), জাতীয় পার্টির শিব প্রসাদ মিশ্র ও জেএসএস সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী ডা. গঙ্গা মানিক চাকমা। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী অপর দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক মেয়র হাবিবুর রহমান হাবিব (জগ) ও অমর কুমার দে (মোবাইল ফোন) দলীয় প্রার্থী আকবর হোসেন চৌধুরীর সমর্থনে নির্বাচন থেকে সরে গেছেন।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান। সূত্র- অন্য মিডিয়া